ব্যবধান: বাদল রায় স্বাধীন

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ৮ সেপ্টেম্বর , ২০১৮ সময় ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ

অাগে
গরীবে আটা খেতো ধনীরা চাল,
ধনীরা মিষ্টি খেতো গরীবরা ঝাল।
গরীবে গুড় খেতো ধনীরা চিনি,
শাক সব্জী খেতোনা ধনীরা কিনি।
গরীবে হেটে যেতো ধনী গাড়ি চড়ে,
ফল মুল খেতো তারা নিত্য পেট ভরে।
দুধ চা খেয়ে রোজ তুলতো ঢেঁকুর,
গরীবে পুষতো বিড়াল আর কুকুর।
গরীবে ছেঁড়া কাপড় ধনীরা পড়তো দামী
তাহা দেখে মিটিমিটি হাসতো অন্তর্যামী।
গরীবের বোঝা থাকতো সব সময় পিঠে,
ধনীর সামনে বোঝা হাটতোনা মোটে।

এখন
গরীবে চাল খাই ধনীরা আটা,
ধনীদের নিত্য কাজ শুধু পায়ে হাটা।
গরীবে মিষ্টির স্বাদ নেয় এখন নিত্য,
ধনীদের তিতা খাওয়া ডাক্তারের পথ্য।
চিনি খেলে ধনীর এখন সুগার যায় বেড়ে
শাক খেতে বাজারে যায় প্রতিদিন দৌড়ে।
রং চা করে এখন ধনীরা পান,
পরিস্কার রাখতে পেট শাকপাতা খান।
কুকুর এখন ধনীদের বেডে দেয় ঘুম
বিড়ালের মুখে দেয় আদরের চুম।
ছেঁড়া কাপড় জুতা পরে ফ্যাশান করে
হাফ প্যান্ট পড়ে এখন সবার ঘরে ঘরে।

এ হলো স্রষ্টার ভারসাম্য রক্ষা
কবিতায় দিলাম আজ এটুকু ব্যাখ্যা।