বৌদ্ধ ভিক্ষু হত্যার ঘটনায় মামলা

প্রকাশ:| শনিবার, ১৪ মে , ২০১৬ সময় ১১:২১ অপরাহ্ণ

বৌদ্ধ ভিক্ষু
বান্দরবান প্রতিনিধি ॥
বান্দরবানের বাইশারীতে বৌদ্ধ ভিক্ষু’কে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে ভিক্ষু’র ছেলে চিংসাউ চাক। আজ শনিবার সন্ধ্যায় তিনি এ মামলা দায়ের করেন।
এদিকে জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের চাকপাড়া বৌদ্ধ বিহারের (ক্যায়াং) প্রধান ভিক্ষু মংসই উ (৭৮) মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে। হত্যার রহস্য উদঘাটনে মাঠে নেমেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে এখনো হত্যাকান্ডের সঙ্গে কারা জড়িত বিষয়টি নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।
নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, কয়েকটি বিষয় মাথায় নিয়ে হত্যাকারীদের গ্রেফতারের চেষ্ঠা চালানো হচ্ছে। পাহাড়ীদের অভ্যন্তরিন বিষয় এবং বহিরাগতদের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। রহস্য উদঘাটনের আগে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছেনা।

প্রসঙ্গত: শনিবার ভোররাতের কোনো একসময়ে জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের উত্তর চাকপাড়া বৌদ্ধ বিহারের (ক্যায়াং) প্রধান ভিক্ষু মংসই উ (৭৮) ভোররাতে গলা কেটে জবাই করে হত্যা করেছে দূর্বত্তরা। প্রায় দু’বছর আগে বৌদ্ধ ক্যায়াংটি প্রতিষ্ঠা পর থেকেই ক্যায়াংয়ের প্রধান ভিক্ষু হিসেবে বৌদ্ধ ধর্মীয় রীতিনীত অনুসরণ করে ভিক্ষুর দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। সকালে স্থানীয় পূজারীরা ভিক্ষুর জন্য খাবার নিয়ে বৌদ্ধ ক্যায়াংএ গেলে ভিক্ষুর লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিক্ষুর লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি, জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) হারুনুর রশীদ, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষি পদ দাশ’সহ বিজিবি এবং প্রশাসন-আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এদিকে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ঘটনাস্থল’সহ আশপাশের এলাকাগুলোতে বিজিবি-পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।