বোয়ালখালীতে সংবাদ সম্মেলনে সমর চৌধুরীর পরিবারের অভিযোগ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৯ মে , ২০১৮ সময় ১০:০৮ অপরাহ্ণ

এক প্রবাসীর সাথে বিরোধের জেরে মাদক ও অস্ত্র মামলায় ফাঁসিয়েছে পুলিশ
বোয়ালখালী প্রতিনিধি :
এক প্রবাসীর সাথে বিরোধের জেরে একাধিক মাদক ও অস্ত্র দিয়ে মামলায় ফাঁসিয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার সারোয়াতলী গ্রামের বাসিন্দা সমর চৌধুরীর পরিবার।
মঙ্গলবার (২৯ মে) বিকেলে প্রেসক্লাব বোয়ালখালীতে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষানবিশ আইনজীবি সমর চৌধুরীর বড় মেয়ে অলকানন্দা চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় প্রবাসী সঞ্চয় দাশের ইন্ধনে একের পর এক মামলা দিয়ে হয়রানি করছে পুলিশ। উপজেলার সারোয়াতলী ইউনিয়নের দক্ষিণ কঞ্জুরী গ্রামে স্বপন দাশ নামের এক ব্যক্তির সাথে জায়গা জমি নিয়ে প্রবাসী সঞ্চয় দাশের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে স্বপন দাশ আমার বাবার(সমর চৌধুরী) সহায়তা চাইলে তিনি একজন ভালো আইনজীবি দেখিয়ে দেন।
এটাই ছিলো বাবার অপরাধ। বাবা কোনো দিন সিগারেট খাননি। তিনি আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। আওয়ামী লীগের সাথে দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করছেন। তার বিরুদ্ধে একের পর এক মাদকের মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন প্রবাসী সঞ্জয় দাশ ও পুলিশ। এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করে প্রধানমন্ত্রী ও স্ব-রাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।
এ সময় তিনি কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার বাবার বয়স এখন ৬৫ বছর পেরিয়ে গেছে। মা খুবই অসুস্থ। আমরা দুই মেয়ে, কোনো ভাইও নেই। দুই বোন চট্টগ্রামের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উচ্চ শিক্ষা নিয়েছি। আমরা ছাড়া বাবার আর কেউ নেই। বাবা ছাড়া আমাদেরও আর কেউ নেই।


অলকানন্দা বলেন, মাদক ও অস্ত্র মামলায় গ্রেফতার দেখেয়ি আদালতে সোর্পদ করা পর বাবার সাথে কথা বলে জানতে পারি, গত রবিবার (২৭ মে) বিকেলে চট্টগ্রাম আদালত থেকে নেমে এসে বাবা হকার্স মার্কেটে সামনে দাঁড়ালে, পেছন থেকে কিছু সাদা পোশাকধারী কয়েকজন লোক, ‘এই সমর বাবু, এই সমর বাবু বলে ডাকতে থাকেন।’ এসময় সমর চৌধুরী ফিরে তাকালে তারা গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। এরপর হাত কড়া পড়িয়ে চোখ বেঁধে ফেলেন। এসময় তারা গাড়িতে করে বিভিন্ন জায়গায় যান। এরএক পর্যায়ে চরণদ্বীপ বিল নামক স্থানের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘এখানে মারা যাবে না। অস্ত্র ও ইয়াবাগুলো কই।’ এরপর রাত গভীর হলে সারোয়াতলীর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে বিছানার উপর অস্ত্র এবং মাদকগুলো রেখে ছবি তুলে রাখে। এরপরদিন সোমবার বিকেলে অস্ত্র ও মাদক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোর্পদ করে।
অলকানন্দা অভিযোগ করে বলেন, বাবাকে আটকের পর আমরা বিভিন্ন জায়গা খোঁজ করেছি। বোয়ালখালী থানায় গেলে ওসি হিমাংশু কুমার দাস বারবার উপরের নির্দেশ রয়েছে বলে জানান। কার নির্দেশ! কেন নিরীহ ব্যক্তি এভাবে মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন জানতে চাইলে, ওসি এর কোনো সদুত্তর দেননি। আমরা বাবার (সমর চৌধুরী) নি:শর্ত মুক্তি কামনা করছি।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, সমর চৌধুরী ছোট মেয়ে তমালিকা চৌধুরী, বড় মেয়ের স্বামী ধীমান মল্লিক, স্থানীয় ইউপি সদস্য সুরেশ চৌধুরী।
এর আগে উপজেলা পরিষদের সামনে সমর চৌধুরীর মুক্তির দাবিতে মানব বন্ধন করেন তার পরিবারের সদস্যরা।