বোয়ালখালীতে টেম্পুতে যাত্রী বেশে ছিনতাইকারী!

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮ সময় ১১:৪৭ অপরাহ্ণ

জিম্মি করে টাকা দাবি, পরে মুক্তি

বোয়ালখালী প্রতিনিধি :
প্রতিদিনের মতো শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় নগরীর অলংকার থেকে গাড়ির গ্যারেজের কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন বোয়ালখালী উপজেলার আকুবদ-ী গ্রামের মিলন নাথের ছেলে পলাশ নাথ(২৬)। যথারীতি তিনি নগরীর বাস টার্মিনাল থেকে সিএনজি চালিত টেম্পুতে উঠেন বোয়ালখালীতে আসার জন্য।
যাত্রী তেমন ছিলো না। তিনিসহ ৫-৭জন যাত্রী হবে। এর মধ্যে একজন বোরকা পড়া মহিলা যাত্রীও ছিলো। পশ্চিম কালুরঘাটে সেতু পারাপারের জন্য লাইনে আটকা পড়েন। অপেক্ষা করতে হয় প্রায় আধ ঘণ্টা। সময় তখন প্রায় সন্ধ্যা সাতটা। টেম্পুতে বসা দুইজন যাত্রী নেমে যায়, অন্য দুইজন যাত্রী উঠেন।
কালুরঘাট সেতুতে ওঠার সাথে সাথেই যাত্রী বেশে বসা মানুষগুলো ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ছুরি ধরে চোখ মুখ বেঁধে ফেলে। পকেটে থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল নিয়ে নেয়। এরপর নিয়ে যায় গোমদ-ী ফুলতল এলাকার কোনো এক ভাড়াবাসায়। মারধর করতে থাকে। পরে টাকা দাবি করে ঘরের মোবাইল নাম্বার চান তারা।
পলাশের পিতা মিলন নাথ জানান, শনিবার রাত ৯টার দিকে পলাশের মোবাইল থেকে কারা যেন ফোন করে বলেন, পলাশ তাদের জিম্মায় রয়েছে। বিকাশে ১০হাজার টাকা দিতে হবে। অন্যথায় পলাশকে মারধর করা হবে। টাকা দিলে ছেড়ে দেয়া হবে। তাদের নগদে টাকা দিতে চাইলে গোমদ-ী ফুলতল এলাকায় যেতে বলেন। এরপর এলাকার মানুষজন মিলে ফুলতল পৌঁছে বিভিন্ন অলিগলিতে খোঁজ নিতে থাকি। এসময় বিষয়টি পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। রাত সাড়ে ১০টার দিকে পলাশকে ছেড়ে দেয় তারা। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
পলাশকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপ-সহকারি কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার সঞ্জয় সেন।
থানার সেকেন্ড অফিসার (এসআই) মো. বেল্লাল হোসেন জানান, অভিযোগ পেয়ে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে।


আরোও সংবাদ