বেগম জিয়ার ভিশন ২০৩০ দেশের জনগণের মুক্তি সনদ-শাহাদাত

প্রকাশ:| বুধবার, ৩০ আগস্ট , ২০১৭ সময় ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

দেশের জনগণ এখন বহুবিদ সমস্যা জর্জরিত। বন্যা কবলিত অসহায় মানুষদের খাদ্যের অভাবে অসহনীয় দুর্ভোগে কাটাতে হচ্ছে। দেশের সাধারণ মানুষ ভোটাধিকার হারিয়েছে বিগত অনেক দিন ধরে। দেশের জনগণের কথা বলার স্বাধীনতা, গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক অধিকার বিলুপ্তই প্রায়ই। আজকের বিচার বিভাগ নির্বাহী বিভাগ কর্তৃক হুমকির সম্মুখিন। প্রধান বিচার প্রতি যেখানে নিরাপত্তাহীন সেখানে আজকে জনগণ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে এই দুর্বিসহ অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য রাজপথে নামতে খালেদা জিয়ার নির্দেশের অপেক্ষায়। খালেদা জিয়া জাতির উদ্দেশ্যে যে ভিশন ২০৩০ প্রকাশ করেছেন তাই এক জনগণের মুক্তির সনদে পরিণত হয়েছে। প্রতিটা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী কর্তৃক সন্ত্রাসের অভয়ারণ্যে পরিণত করেছে। ছাত্রদের স্বাভাবিক শিক্ষা গ্রহণের পরিবেশ সেখানে নেই। প্রতিনিয়ত আমার ছাত্রী বোনেরা ধর্ষিত হচ্ছে ছাত্রলীগ নেতা-সন্ত্রাসীদের কাছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকেরাও ছাত্রলীগের অত্যাচারের হাত থেকে রেহাই পায়নি। তাই আজকে ছাত্র সমাজকে শিক্ষাগ্রহণের পাশাপাশি জাতির এ দুসময় থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য ৯০’র গণআন্দোলনের মত পরিবেশ তৈরী করতে হবে। খালেদা জিয়ার ভিশন ২০৩০ বাস্তব রূপ দিতে হলে সুশাসন বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনতে হবে। ভিশন ২০৩০ আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি বাংলাদেশ গড়ে তুলতে যে সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে তা ছাত্র সমাজকে লুপে নিতে হবে। তা বাস্তবায়নের পথ সুগম করার দায়িত্ব ছাত্র সমাজকে নিতে হবে।
২৯ আগস্ট মঙ্গলবার বিকাল ৪ ঘটিকায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল ওপেন ইউনিভাসিটি চট্টগ্রাম মহানগর শাখা উদ্যোগে দেশনেত্রী বেগম খালেদার ঘোষিত ভিশন ২০৩০ ও ছাত্র সমাজের ভাবনা শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রেসক্লাব হল মিলনায়তনে তিনি এ কথা বলেন।
ওপেন ইউনিভাসিটির আহ্বায়ক সাহাব উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে ও ছাত্রদল নেতা তৈয়বুল ইসলামের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন চৌধুরী।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত কেতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জিয়াউর রহমান জিয়া, কোতোয়ালী থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ছাদেকুর রহমান রিপন। আরও উপস্থিত ছিলেন, নগর ছাত্রদল নেতা শেখ ইয়াছিন নওশাদ, আলিফ উদ্দিন রুবেল, জামাল খান ওয়ার্ড বিএনপি নেতা শওকত চৌধুরী, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক জসিম উদ্দিন হিমেল, মহসিন কলেজ ছাত্রদলের আহ্বায়ক ইয়াকুব সিফাত, শফিউল আলম, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক শাকিল আহমেদ, বন্দর থানা ছাত্রদল নেতা তানভীর আহমেদ, ওপেন ইউনিভাসিটি ছাত্রদলের ছাত্রদল নেতা সালাহ উদ্দিন সুজন, আব্দুল আজিজ, মোঃ আরিফ, কিশোর কুমার আকাশ, এনি দে, সুমী আক্তার, সুমাইয়া আক্তার, মোঃ নিজাম উদ্দিন, পাঁচলাইশ থানা ছাত্রদল নেতা সম্রাট আকবর, মোঃ রাসেল, মুন্না, আকবর হোসেন, মানিক হোসেন, সজিব আহমেদ প্রমুখ।