বৃক্ষ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বৃদ্ধিকারক, পরিবেশ সংরক্ষণের সজীব প্রতীক- সিটি মেয়র

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ৪ আগস্ট , ২০১৮ সময় ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে আজ থেকে মাসব্যাপি বৃক্ষরোপন কর্মসূচী শুরু হয়েছে।আজ শনিবার বিকেলে নগরীর কাটগড়স্থ এম.এ.আজিজ উদ্যানে গাছের একটি চারা রোপন করে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন। এই উপলক্ষে ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের কাটগড়স্থ এম এ আজিজ উদ্যানে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। চসিক পরিবেশ উন্নয়ন বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় কাউন্সিলর হাজী মো. জয়নাল আবেদীন, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহানুর বেগম, চট্টগ্রাম অঞ্চল চট্টগ্রামের বন সংরক্ষক ড. মো. জগলুল হোসেন ও চসিক সচিব মোহাম্মদ আবুল হোসেন বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র বলেন, সবুজায়ন কর্মসূচির আওতায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ছাদ বাগান কর্মসূচি,রাস্তার পাশে গাছের চারা রোপন, বনায়নসহ নানামুখী কার্যক্রম পরিচালনা করে চলেছে। এ লক্ষ্যে নগরের পতিত জায়গায়, বাড়ির ছাদে বনজ, ফলজ ও ঔষধীসহ বিভিন্ন জাতের গাছের চারা রোপন করার জন্য নগরবাসীকে বিভিন্ন ভাবে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। বৃক্ষ মানুষের জীবন বাঁচায়। বৃক্ষ ছাড়া মানুষের বেঁচে থাকার কোনো উপায় নেই। বৃক্ষ যেমন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বৃদ্ধিকারক, তেমনি আবার পরিবেশ সংরক্ষণেরও সজীব প্রতীক। তাই চট্টগ্রাম নগরীকে পরিবেশবান্ধব গ্রীন সিটিতে রূপান্তরিত করার লক্ষ্যে বৃক্ষরোপনের মাধ্যমে সবুজায়ন এবং ছাদ বাগান কর্মসূচি বাস্তবায়ন কাজ চলমান রয়েছে। এজন্য চলতি র্অ্থ বছরের বাজেটে এক কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশনের সকল ওয়ার্ড অফিস, শিক্ষা ও সেবা প্রতিষ্ঠানের ছাদে বাগান করার ব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন- চট্টগ্রাম নগরীকে পরিকল্পিতভাবে আরো সবুজায়ন ও পরিবেশবান্ধব করার বিষয়ে ভাববার সময় এসেছে। এই নগরীকে যদি বৃক্ষরোপনের মাধ্যমে সবুজায়ন করা যায় তাহলে জনসাধারণের জীবনমান বাড়বে। প্রসঙ্গক্রমে মেয়র বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এ বছর জাতীয় বৃক্ষ রোপন অভিযানে মুিক্তযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী ৩০ লাখ বীর শহীদের স্মরণে সারা দেশে একযোগে জেলা, উপজেলা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকল প্রতিষ্ঠানে ৩০ লাখ বৃক্ষ রোপন করার ঘোষণা দিয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় নগরীর কাটগড়স্থ এম এ আজিজ উদ্যানে চসিকের বৃক্ষ রোপন অভিযান কর্মসূচী। তিনি বলেন, বাংলাদেশেও এক সময় ২৩ভাগ বনে আচ্ছাদিত ছিল। বর্তমানে তা নেই। তবে এ পরিমান না থাকলেও কমপক্ষে ১২ শতাংশ বনায়ন থাকা প্রয়োজন বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। এই প্রসঙ্গে তিনি জাতিসংঘ রিপোর্ট এর কথা উল্লেখ করে বলেন একটি দেশের মোট আয়তনের শতকরা ২৫ শতাংশ বনভূমি থাকা প্রয়োজন। তবে প্রাকৃতিক এবং মানবসৃষ্ট সংকটের কারনে বর্তমানে বাংলাদেশে মাত্র ১১ শতাংশের কিছু বেশি বনভূমি রয়েছে। বেঁচে থাকার প্রয়োজনে বৃক্ষের বিকল্প নেই। বৃক্ষ না থাকলে সভ্যতাও টিকে থাকবে না। তাই সভ্যতা টিকিয়ে রাখতে আমাদেরকে বৃক্ষ রোপন করতে হবে। এই কর্মসূচির আওতায় নগরীর ৪১টি ওয়ার্ড ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে দেড় লক্ষ গাছের চারা বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। অনুষ্ঠানে কাউন্সিলর ছালেহ আহম্মদ চৌধুরী, কাউন্সিলর কফিল উদ্দিন খান, হাজী মো. আবুল বশর, মো. জাকির চেয়ারম্যান, মোহাম্মদ আলী, মো. কামাল উদ্দিন, মো. আবছার কন্ট্রাক্টর, আবদুল সেলিম, মো. সামসুদ্দিন, মো. সামসুল আলম, ডা. মো. জয়নাল, মো. আলী আকবর চৌধুরী, মো. আসলাম, মো. ইউসুফ কোম্পানী, মো. মনির, মো. কামরুল হাসান, মো. সুমন, জাহাঙ্গীর হোসেন শান্ত, ছাবের হোসেন, মো. তৌহিদ, মো. ফারুক, আব্দুল হাই, মো. নুরুল আলম, মো. জাবেদ, মো. আক্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।