বুধবার ভোর ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত দূরপাল্লার বাস ধর্মঘটের ডাক

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:২৯ অপরাহ্ণ

দূরপাল্লার বাসসীতাকুন্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনার পর যানবাহন ভাংচুরের প্রতিবাদে ২৪ ঘন্টার দূরপাল্লার বাস ধর্মঘট ডেকেছে চট্টগ্রাম আন্ত:জেলা বাস মালিক সমিতি।

বুধবার ভোর ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে সংগঠনটি।

আন্তঃজেলা বাস মালিক সমিতির দপ্তর সম্পাদক হাজী মনোয়ার আহমেদ জানান, সীতাকুন্ডে বেপরোয়াভাবে গাড়ি ভাংচুরের প্রতিবাদে বুধবার ভোর ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত দেশের সব জেলায় এবং কলকাতার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম থেকে কোন দুরপাল্লার বাস ছেড়ে যাবে না।

দেশের অন্যান্য জেলা এবং কলকাতা ছেড়ে আসা কোন বাসকেও চট্টগ্রামে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, ‘আমাদের শতাধিক গাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। কিছু গাড়ি এমনভাবে ভাংচুর করা হয়েছে যা মেরামতের অযোগ্য হয়ে পড়েছে।’

তবে অভ্যন্তরীণ রুটের যানবাহন চলাচলে কোন বাধা দেয়া হবেনা বলে জানিয়েছেন হাজী মনোয়ার আহমেদ।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে সীতাকুন্ডের বাইপাস এলাকায় স্টার লাইনের একটি বাসের চাপায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইইউসি’র এক শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ খবর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্দ শিক্ষার্থীরা সীতাকুন্ডের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকায় ব্যারিকেড দিয়ে গাড়ি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে।

এসময় মহাসড়কের উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। শিক্ষার্থীদের অবরোধে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরাও সময়মতো ঘটনাস্থলে পৌছাতে পারেনি। পরে সাড়ে ১২ টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়।

দুপুর একটার দিকে প্রশাসন শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয়। পরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসে।

এরপর বিকেলে গাড়ি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার প্রতিবাদে দুরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস ধর্মঘটের ডাক দেয় চট্টগ্রাম আন্ত:জেলা বাস মালিক সমিতি।