আজ থেকে শুরু হলো দেশের একক বৃহত্তম কম্পিউটার বাজার বিসিএস কম্পিউটার সিটির মেলা

প্রকাশ:| বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৬:০৭ অপরাহ্ণ

বিসিএস কম্পিউটার সিটির মেলা“বিশ্বকাপের খেলা-প্রযুক্তির মেলা” শ্লোগান নিয়ে আজ বুধবার থেকে শুরু হয়েছে দেশের একক বৃহত্তম কম্পিউটার বাজার বিসিএস কম্পিউটার সিটির মেলা। ঢাকার আগারগাঁওস্থ বিসিএস কম্পিউটার সিটিতে সর্ববৃহৎ একক কম্পিউটার প্রদর্শনী ‘সিটিআইটি ২০১৪’ মেলা চলবে ৮ মার্চ পর্যন্ত। অন্যান্য বারের মতো এবারও মেলায় বিশেষ আকর্ষণে থাকছে বিভিন্ন পণ্যের ওপরে বিশেষ মূল্যছাড়, তথ্যপ্রযুক্তির সর্বাধুনিক পণ্যের সমাহার ছাড়াও বিশ্বের সনামধন্য প্রতিষ্ঠানের সুসজ্জিত প্যাভিলিয়ন। বিসিএস কম্পিউটার সিটির নিচ তলায় সজ্জিত মঞ্চে প্রতিদিন থাকছে সেলিব্রেটি শো। এ ছাড়াও প্রতিযোগিতার মধ্যে আছে শিশু চিত্রাঙ্কন, গেমিং, ডিজিটাল ফটোগ্রাফি, বিতর্ক, কুইজ এবং রক্তদান কর্মসূচি ছাড়াও বেশ কিছু ভিন্নধর্মী আয়োজন।

আজ মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন করেন যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এ সময়ে তিনি বলেন, ‘এই মেলার মাধ্যমে মনে হচ্ছে আজ ২০২১ সালের রূপকল্প পূরণ হতে চলেছে। আমাদের বাংলাদেশকে ডিজিটাল উন্নয়ন করতে হবে। আমাদের এই কম্পিউটার মেলার প্রসার আরো বাড়াতে হবে। আমরা নষ্ট মেধা দিয়ে দেশ উন্নয়ন করতে চাই না। আমরা সঠিক মেধা দিয়েই দেশ উন্নয়ন করবো।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমরা যে ডিজিটাল বাংলাদেশ করার স্বপ্ন দেখছি তা পূরণ হতে আর বেশি দেরি নাই। এই কম্পিউটার মেলার মাধ্যেমে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ করতে সক্ষম হয়েছি। নতুন প্রজম্ম আমাদেরকে ডিজিটাল বাংলাদেশ উপহার দিবে। এর জন্য আমরা কম্পিউটারসহ বিভিন্ন ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করছি।’

বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘এই মেলায় আমাদেরকে ডিজিটাল বাংলাদেশের কথা মনে করিয়ে দেয়। এই মেলাই পারবে একটি সুন্দও তথ্য-প্রযুক্তি কেন্দ্রক ডিজজিটাল বাংলাদেশ করতে।’ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বিসিএস কম্পিউটার সিটির সভাপতি মজিবুর রহমান স্বপন। অনুষ্ঠানে সবাইকে ধন্যবাদ জানান সিটিআইটি মেলা ২০১৪’র আহবায়ক ও বিসিএস কম্পিউটার সিটির মহাসচিব এ এন এম কামরুজ্জামান।

বিসিএস কম্পিউটার সিটির নিজস্ব আঙ্গিনায় প্রায় ২,০০,০০০ বর্গফুট জায়গায় ‘বিশ্বকাপের খেলা-প্রযুক্তির মেলা’ শ্লোগান নিয়ে শুরু হয়েছে এ প্রদর্শনী। এই মেলায় তথ্য প্রযুক্তির অতি পরিচিত ব্যান্ডের কম্পিউটার সামগ্রী, প্রায় ১৬০টি স্থায়ী প্রতিষ্ঠানে প্রদর্শন সহ অতি সুলভ মূল্যে বিক্রয় করা হবে। এই সব পন্য সামগ্রীর মধ্যে উল্লেখযোগ্য, কম্পিউটার হার্ডওয়ার সফটওয়ার পন্য সামগ্রী, নেট ওয়ার্ক ডাটা কমিউনিকেশন পন্য সামগ্রী, মাল্টিমিডিয়া আইসিটি শিক্ষা উপকরন ল্যাপটপ, পামটপ, ডিজিটাল জীবন ধারা ভিত্তিক প্রযুক্তি ও পন্য এবং বিশ্বের বিভিন্ন নামকরা আইসিটি ব্যান্ড ডিসপ্লে করার জন্য প্যাভিলিয়নের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মেলায় থাকছে একাধিক আলোচনা অনুষ্ঠান, কম্পিউটার বিষয়ক অনুষ্ঠান, বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ, গুনীজন সংবর্ধনা, শিশু চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা, গেমিং প্রতিযোগীতা, ডিজিটাল ফটোগ্রাফী প্রতিযোগীতা, বিতর্ক প্রতিযোগীতা, কুইজ প্রতিযোগীতা, রক্তদান কর্মসূচী ইত্যাদি।

সকাল ১১ টায় মেলার উদ্ধোধন শেষে মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। প্রদর্শনীতে প্রবেশমূল্য ১০ টাকা। প্রতিবারের মতো এবারও মেলায় শিক্ষার্থীরা পরিচয়পত্র দেখিয়ে বিনামূল্যে প্রবেশের সযোগ পাবে। এ ছাড়াও প্রতিবন্ধীরা বিনামূল্যে মেলায় প্রবেশে অগ্রাধিকার পাবেন। প্রতিদিন প্রবেশ টিকেটের ওপর র‌্যাফেল ড্রয়ের মাধ্যমে দেওয়া হবে প্রতিদিন এলসিডি টিভি, ল্যাপটপ, ডিজিটাল ক্যামেরাসহ লক্ষ লক্ষ টাকার আকর্ষণীয় পুরস্কার। গোল্ড স্পন্সর আসুস, অ্যাভিরা, স্যামসাং, এইচপি ও সিলভার স্পন্সর ইপসন এবং পেমেন্ট পার্টনার বিকাশ। মিডিয়া পার্টনার হিসাবে থাকছে এটিএন বাংলা, বাংলাদেশ প্রতিদিন, এবিসি রেডিও এবং বাংলানিউজ২৪.কম।


আরোও সংবাদ