ইদরিস আলমের রাজনৈতিক জীবন ছিল খুব বর্ণিল

প্রকাশ:| রবিবার, ৬ নভেম্বর , ২০১৬ সময় ০৯:৩০ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম, নগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বীর মুক্তিযোদ্ধা,কবি, কলামিস্ট ইদরিস আলমের দশম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ৬ নভেম্বর ২০১৬ রবিবার বিকেল ৩টায় চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে স্বরণ সভা অনুষ্টিত হয়েছে। ইদরিস আলম স্মৃতি সংসদ এর উদ্যোগে এই স্মরণ সভা আয়োজন করা হয়। ইদরিস আলম স্মৃতি সংসদের সভাপতি তৈয়বুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং ইদরিস আলম স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক এস এম মহিউদ্দিন মহিম এর সঞ্চলণায় উক্ত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিন আহমদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন দক্ষিন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মোহাম্মদ হাসনী, চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক পরিচালক সৈয়দ ছগীর আহমদ, কামরুউদ্দিন আহমেদ, মহানগর আওয়ামীলীগ নেতা শহিদুল আলম, নুরুল আমিন শান্তি সও:,বাকলিয়া থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি সিদ্দিক আলম, আহম্মদ ইলিয়াছ, ফয়েজ উল্ল্যাহ চৌধুরী বাহাদুর, দীপংকর চৌধুরী, মো হোসেন, ইফতেখার আলম জাহেদ, সাইফুদ্দিন বাহার, এন.কে আলম সাজ্জাদ, ওয়ায়েজ কাদের প্রমূখ। উক্ত স্বরণ সভায় প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী বলেন, ইদরিস আলম প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্থায় সক্রিয় রাজনীতি সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে পড়েন। তার রাজনৈতিক জীবন ছিল খুব বর্ণিল। ষাটের দশকের তুখোড় ছাত্রনেতা ছিরেন ইদিরস আলম। সে সময় চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও কিংবদন্তি নেতা জহুর আহমদ চৌধুরীর হাত ধরে তিনি রাজনীতিতে পদার্পণ করেন। ইদরিস আলমকে ¯েœহ করতেন জহুর আহমদ চৌধুরী। বলা হয় তৎকালীন সিটি আওয়ামী লীগের পার্টি অফিস ২৩ নং নেস্ট হাউস, স্টেশন রোড ছিল ইদরিস আলমের স্থায়ী ঠিকানা। রাত দিন পড়ে থাকতেন সেখানে। স্বাধীনতা সংগ্রামের উত্তাল দিনগুলির সাক্ষী ইদরিস আলম। ওই সময়ে ঘটনাবহুল চট্টগ্রামের প্রতিটি আন্দোলনের পরতে পরতে জড়িয়ে ছিলেন ইদরিস আলম। বঙ্গবন্ধু ডাকে সাড়া দিয়ে সে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহন করেন। ইদিরস আলম বঙ্গবন্ধুর খুবই কাছের মানুষ ছিলেন।