বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় শ্রীঘরে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল , ২০১৭ সময় ১০:৫২ অপরাহ্ণ

লিটন কুতুবী, কুতুবদিয়া-কক্সবাজার।

মেয়ের বিয়ের প্রস্তাবে ছেলে রাজি না হওয়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় শ্রীঘরে যেতে হলো আনোয়ার হোসেন (১৬)কে। পারিবারিকভাবে ছেলের পারিবার আর্থিক স্বচ্ছলতা দেখে মেয়ের পরিবার উঠে পড়ে লেগে যায় বিয়ে দিতে। কিন্তু ছেলের পরিবার কোন মতেই রাজি নেই। মেয়ের পরিবার বারংবার বলে যাচ্ছে তাদের প্রস্তাবে রাজি না হলে দেখিয়ে নেবে। এ ঘটনায় দুই পরিবারে অনেকদিন রশি টানাটানিতে অবসান ঘটিয়ে গত ১৬ এপ্রিল মেয়ে বাবা মনজুর আলম (৫০) বাদি হয়ে কুতুবদিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ গত ১৭ এপ্রিল দুপুরে আনোয়ারকে আটক করে কুতুবদিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আলমগীর কবিরের আদালতে হাজির করে। আদালত আনোয়ারের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। আনোয়ার হোসেন কুতুবদিয়া দ্বীপের দক্ষিণ ধুরুং ইউনিয়নের পূর্ব আলী ফকির ডেইল গ্রামের মোঃ মোজাম্মেলের ছেলে। প্রতিবেশী সূত্রে জানা গেছে, আনোয়ারের সাথে একই ইউনিয়নের মনজুর আলমের মেয়ে শারমিন আকতার (১৫)কে বিয়ে দেওয়ার জন্য উঠে পড়ে লেগে যায় শারমিনের পরিবার। কোন মতেই ছেলের পরিবার রাজি না থাকায় এলাকার কিছু সংখ্যক কুচক্রী প্রভাবশালী মিলে মিথ্যা নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা সাজিয়েছে। এ ব্যাপারে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার বাদির মনজুর আলমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, তার মেয়েকে বাড়িতে এসে উত্যক্ত করায় মামলা করেন। স্থানীয় দক্ষিণ ধুরুং ইউপির চেয়ারম্যান ছৈয়দ আহমদ চৌধূরী জানান, কোন সময়ে মনজুর আলমের মেয়ে উত্যক্ত করার বিয়য়ে পরিষদকে জানায়নি। দক্ষিণ ধুরুংয়ের স্থায়ী বাসিন্দা নুরুল আলম জানান,পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কিছু সংখ্যক প্রভাবশালী ব্যাক্তি নাবালক এক ছেলেকে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা দিয়ে হয়রানি করা দঃখ জনক। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসা করলে আদালত পর্যন্ত গড়াতো না।


আরোও সংবাদ