বিশ্ব পুঁজিবাজার বড় ধরনের হোঁচট খেয়েছে

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮ সময় ০৮:৫৬ অপরাহ্ণ

বিশ্ব পুঁজিবাজার বড় ধরনের হোঁচট খেয়েছে। লন্ডন, ফ্রাঙ্কফুর্ট, প্যারিস, টোকিও এবং নিউ ইয়র্কসহ বিশ্বের প্রধান পুঁজিবাজারগুলোতে মঙ্গলবার সূচকের ব্যাপক পতন হয়েছে। এরমধ্যে লন্ডন, ফ্রাঙ্কফুর্ট এবং প্যারিসের পুঁজিবাজারের সূচক কমেছে প্রায় ৩ শতাংশ করে। আর যুক্তরাষ্ট্রের ডো সূচক কমেছে ৪ দশমিক ৬ শতাংশ, ২০১১ সালের আগস্টের পর এটিই ডো সূচকের সর্বোচ্চ পতন। এসএন্ডপি ৫০০ সূচক কমেছে ৪ দশমিক ১ শতাংশ। জাপানের নিক্কেই ২৫৫ সূচক কমেছে ৪ দশমিক ৭ শতাংশ। বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ব্যাপকভাবে শেয়ার বিক্রি করে দেওয়ার প্রবণতা থেকেই এ পতন হয়েছে। বিবিসি ও ব্লুমবার্গের রিপোর্টে এসব তথ্য দেওয়া হয়েছে।
বিশ্ব অর্থনীতির বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রে মজুরির প্রবৃদ্ধির তথ্য আসার পরই বাজারে পতন দেখা দেয়। এর কারণ- মজুরি বাড়ায় মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে যুক্তরাষ্ট্রের সুদের হার দ্রুত বাড়তে শুরু করবে। আর সুদের হার বাড়লে শেয়ারবাজারে দরপতন হওয়াই স্বাভাবিক। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে দরপতন শুরু হওয়ার পর তা ইউরোপেও প্রভাব পড়ে। মঙ্গলবার লন্ডনের এফটিএসএফ ১০০ সূচক ১২৬ পয়েন্ট কমেছে। যা গত বছরের এপ্রিলের পর সর্বনিম্ন। প্রভাব পড়েছে এশিয়ার বাজারেও। হংকংয়ের হ্যাং স্যাং সূচক কমেছে ৫ শতাংশ। অস্ট্রেলিয়ার বেঞ্চমার্ক এসএন্ডপি ২০০ কমেছে ৩ দশমিক ২ শতাংশ। এসব দেশগুলোতে সুদের হার বাড়তে শুরু করার পরই সূচকের পতন হয়েছে। আর জাপান কর্তৃপক্ষ সুদের হার বাড়ার সম্ভাবনা খুবই কম জানানোর পরও দেশটির সূচকে পতন হয়েছে।
বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্ব পুঁজিবাজারে যে পতন দেখা যাচ্ছে তা দীর্ঘমেয়াদি নয়, স্বল্পমেয়াদি। স্টক ব্রোকার র‌্যাথবোনসের ইনভেস্টমেন্ট ডিরেক্টর জ্যান সাইডন হ্যাম বলেন, বাজারে এখন যে পতন হয়েছে তাকে ধস বলা যাবে না, বলা উচিত দর সংশোধন। কারণ গত এক বছর ধরে বাজার সূচক বেড়েছে অনেক। গত ১৫ মাসের মধ্যে ৩ শতাংশের বেশি দরপতন হয়নি বাজারে। তাছাড়া বিশ্ব অর্থনীতিতে যেভাবে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে তাতে শেয়ারবাজারও আগামীতে ঘুরে দাঁড়াবে শিগগির।