‘বিরোধী দল নিশ্চিহ্ন করে স্বৈরতন্ত্রের স্বপ্ন পূরণ হবে না’ ফখরুল

প্রকাশ:| শনিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৯:০৭ অপরাহ্ণ

হত্যা-গুমের মাধ্যমে বিরোধী দল নিশ্চিহ্ন করে সরকারের স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন কখনও পূরণ হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। সিরাজগঞ্জে বিএনপি কর্মী জাহাঙ্গীরকে হত্যার নিন্দা জানিয়ে মির্জা আলমগীর বলেন, সদর উপজেলার সয়দাবাদ ইউনিয়নের মোহনপুর গ্রামের বিএনপি কর্মী জাহাঙ্গীর হোসেন এক মাস পূর্বে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী কর্তৃক গুম হয়। আজ তার লাশ পাওয়া গেছে। এছাড়া, উপজেলা নির্বাচনের প্রাক্কালে গাইবান্ধা জেলাধীন সুন্দরগঞ্জ পৌর বিএনপি’র সভাপতি মো. মশিউর রহমান সবুজ, টাঙ্গাইল সাদত কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল নেতা প্রদীপকে পুলিশ আজ গ্রেপ্তার করেছে। এসব ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব । তিনি বলেন, জনমনে এখন এটা নিশ্চিত হয়ে গেছে, ৫ই জানুয়ারি প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার বাকশালী কায়দায় বিরোধী দল ও মতকে দমন করে একচ্ছত্র বর্বর শাসন কায়েম করতে চায়। আর এই শাসনের একমাত্র উদ্দেশ্য ক্ষমতার আসনে চিরস্থায়ীভাবে নিজেদের টিকিয়ে রাখা। উদ্দেশ্যকে বাস্তবায়ন করতে বর্তমান অবৈধ সরকার বিএনপি তথা বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদেরকে হত্যা, গুম, অপহরণ, হামলা, মামলা ও জুলুম নির্যাতনসহ নানাবিধ দমনমূলক কার্যক্রম সারাদেশে এক ভয়াবহ বিভিষিকাময় পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। মির্জা আলমগীর বলেন, দেশব্যাপী প্রায় প্রতিদিনই বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীদেরকে গুম করা হচ্ছে এবং পরবর্তীতে তাদের লাশ নদীর ধারে কিংবা ধানক্ষেতে অথবা রাস্তার ধারে ফেলে রাখা হচ্ছে। সিরাজগঞ্জের জাহাঙ্গীর হোসেন ছিলেন মালয়েশিয়ায় প্রবাসী শ্রমিক। মাত্র ছ’মাস আগে তিনি দেশে ফিরেছেন, অথচ তাকে লাশ হতে হলো। বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদেরকে লাগামহীনভাবে গ্রেপ্তার করে কারাগারে আটকে রাখা বর্তমান অবৈধ সরকারকে যেন নেশাগ্রস্ত করে তুলেছে। সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে তিনি বলেন, দলন-পীড়ন চালিয়ে বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করে এদেশে স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন কোনদিনই পূরণ হবে না। কোন স্বৈরাচারের পক্ষেই জনগণের অধিকার অবদমিত করে শুধুমাত্র জুলুম নির্যাতনের মাধ্যমে বর্তমান অবৈধভাবে চেপে বসা ক্ষমতাসীনদের পক্ষেও কোনদিন তা বাস্তবায়িত করা সম্ভব হবে না। জাহাঙ্গীর হোসেন হত্যার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে তাদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানান তিনি। এছাড়া সুন্দরগঞ্জ পৌর বিএনপি’র সভাপতি মো. মশিউর রহমান সবুজ, ছাত্রদল সাদত কলেজ শাখার সাবেক সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর এবং ঢাবি ছাত্রদল নেতা প্রদীপের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।