বিরোধী দলের ওয়াক আউটের মধ্যেই বাজেট পাস

প্রকাশ:| রবিবার, ৩০ জুন , ২০১৩ সময় ০৫:৫৬ অপরাহ্ণ

সংসদের বিরোধী দলের ওয়াক আউটের মধ্যেই ২০১৩-১৪ অর্থ বছরের ২ লাখ ২২ হাজার ৪৯১ কোটি টাকার বাজেট পাস হয়েছে।বিরোধী দলের অনুপস্থিতিতে বাজেট পাস

এটি মহাজোট সরকারের শেষ বাজেট।
প্রস্তাবিত বাজেটে কিছু সংশোধনী এনে রোববার বিকেলে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধরীর সভাপতিত্বে কণ্ঠভোটে জাতীয় বাজেট পাস হয়।
এরআগে ছাঁটাই প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় বাড়তি সময় না দেয়ায় বাজেট পাসের আগে বিরোধী দল অধিবেশন কক্ষ ছেড়ে যায়।
৬ জুন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ২ লাখ ২২ হাজার ৪৯১ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেন।
নির্দিষ্টকরণ বিল-২০১৩ সংসদে গৃহীত হওয়ার মধ্য দিয়ে এই বাজেট পাস করা হয়।
বাজেট পাসের প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীরা ব্যয় নির্বাহের যৌক্তিকতা তুলে ধরে ৫৬টি মঞ্জুরি দাবি সংসদে উত্থাপন করেন। এই মঞ্জুরি দাবি প্রস্তাবগুলো সংসদে কণ্ঠভোটে অনুমোদিত হয়।
বিরোধী দলের ২০ জন সদস্য দাবির যৌক্তিকতা নিয়ে মোট ১০২৩টি ছাঁটাই প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এর মধ্যে ৫টি দাবির ওপর আনীত ছাঁটাই প্রস্তাবের ওপর বিরোধী দলের সদস্যরা আলোচনা করেন। পরে কণ্ঠভোটে ছাঁটাই প্রস্তাবগুলো নাকচ হয়ে যায়।
এর পর সংসদ সদস্যগণ টেবিল চাপড়িয়ে নির্দিষ্টকরণ বিল-২০১৩ পাসের মাধ্যমে ২০১৩-১৪ অর্থবছরের বাজেট অনুমোদন করেন।
বিরোধী দল বিএনপি সংসদে বাজেট অধিবেশন শুরুর দিন থেকে পাসের দিন পর্যন্ত সংসদে উপস্থিত থেকে বাজেট আলোচনা এবং বাজেট পাসের প্রক্রিয়ায় অংশ নেয়। তবে বাজেট পেশের দিন তারা সংসদে অনুপস্থিত ছিলেন।
জমি কেনার ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ কর দিয়ে কালো টাকা সাদা সুযোগ আর রাখা হচ্ছে না এই বাজেটে। আগের দিন পাস হওয়া অর্থবিলে শুল্ক কাঠামোয় আরো কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী ৮টি বিষয়ের প্রস্তাব নতুন করে বিবেচনার জন্য অর্থমন্ত্রীকে অনুরোধের পর তাতে সংশোধনী আনা হয়।
সংবাদপত্রগুলোর নিউজপ্রিন্ট আমদানির ক্ষেত্রে ২৫ শতাংশ শুল্কের প্রস্তাব থেকে সরে এসে ১০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়েছে।
সংশোধনীতে প্লাস্টিকের তৈরি তৈজসপত্র ও গৃহস্থালী সামগ্রী এবং অ্যালুমিনিয়াম ও এনামেলের তৈরি তৈজসপত্রের ওপর থেকে অতিরিক্ত ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে। বাজেট প্রস্তাবে আসবাবপত্র ও মিষ্টির দোকানকে সেবা খাতের আওতা থেকে বের করে পণ্য হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছিল। সংশোধনীতে তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।
ক্যান্সারের চিকিৎসায় ব্যয়বহুল দুটি ওষুধ আমদানির ক্ষেত্রে অগ্রিম মূসক প্রত্যাহার করা হয়েছে। এছাড়া ১৮শ সিসি রিকন্ডিশন্ড গাড়ির শুল্ক কমানো হয়েছে।


আরোও সংবাদ