বিরোধপূর্ণ সাত ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ২৮ জুলাই , ২০১৮ সময় ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

নগর আওয়ামী লীগের স্থগিত থাকা বিরোধপূর্ণ সাত ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ড কমিটিতে বিরোধপূর্ণ দুইটি কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে রাখা হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ জুলাই) নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন স্বাক্ষর করে এ সাতটি কমিটি অনুমোদন করেন।

প্রতিটি কমিটিতে একজন আহবায়ক, তিনজন যুগ্ম আহবায়ক এবং ৪৭ জন সদস্য রাখা হয়েছে।

এর মধ্যে ৪ নম্বর চান্দগাঁও ওয়ার্ডে নুর মোহাম্মদ নুরুকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। যুগ্ম আহবায়করা হলেন- অ্যাডভোকেট মো. আইয়ুব খান, নিজাম উদ্দিন নিজু এবং সাইফুদ্দিন খালেদ।

৫ নম্বর মোহরা ওয়ার্ডে মোহাম্মদ রফিকুল আলমকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে মো. নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, মো. জসিম উদ্দিন এবং খালেদ হোসেন খান মাসুককে।

৯ নম্বর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডে এস এম আলমগীরকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এই ওয়ার্ডে যুগ্ম আহবায়করা হলেন সৈয়দ সরোয়ার মোর্শেদ কচি, জহুরুল আলম জসিম এবং মো. এরশাদ মামুনকে।

৩৬ নম্বর গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডের আহবায়ক করা হয়েছে মো. ইসকান্দর মিয়াকে। যুগ্ম আহবায়করা হলেন-সাইফুল আলম চৌধুরী, মো. মোরশেদ আলী এবং নুর নবী লিটন। এছাড়া সদস্য করা হয়েছে ৪৭ জনকে।

১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডে মো. নুরুল আমিনকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যুগ্ম আহবায়করা হলে সাবের আহমদ সওদাগর, মো. শওকত আলী এবং লুৎফুল হক খুশী। এই ওয়ার্ডে বিরোধপূর্ণ দুইটি কমিটির একটির সভাপতি ছিলেন আসলাম হোসেন। তিনি বর্তমানে থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তার স্থলে লুৎফুল হক খুশীকে যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

১৭ নম্বর পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ডে মো. ইউনুছ কোম্পানিকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যুগ্ম আহবায়করা হলেন, মো. আলী নেওয়াজ, মোহাম্মদ মুসা এবং এম আকবর আলী আকাশ।

৩৪ নম্বর পাথরঘাটা ওয়ার্ডে আবু মো. আবসার উদ্দিনকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে ফজলে আজিজ বাবুল, আশফাক আহমদ এবং আনিসুর রহমান ইমনকে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, হাইকমান্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী কমিটিতে সবাইকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। যাতে কেউ অভিযোগ করতে না পারে। তাই আমরা কাউকে বাদ দিইনি। যেহেতু সবাই আওয়ামী লীগের আশা করি তারা এখন ঐক্যবদ্ধভাবে দলের জন্য কাজ করবেন। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত করতে যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন।