বিভিন্ন দেশের ইতিহাস আলোচনা করলে দেখা যাবে স্বৈরাচার বেশীদিন স্থায়ী হয় না

প্রকাশ:| সোমবার, ২০ জানুয়ারি , ২০১৪ সময় ১০:৪৯ অপরাহ্ণ

তত্ত্ববধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন ও দশম জাতীয় নির্বাচন বাতিল করে সকল দলের অংশগ্রহনে সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচী উপলক্ষে সোমবার (২০ জানুয়ারি) হাটহাজারী বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা বলেছেন,বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ইতিহাস আলোচনা করলে দেখা যাবে স্বৈরাচার বেশীদিন স্থায়ী হয় না। স্বৈরাচার যত তীব্র হয় তার পতন তত বেগবান হয়। হাসিনা সরকার ৫ জানুয়ারি এক প্রহসনের নির্বাচন জনগনকে উপহার দিয়েছে। তা ছিল জনবিচ্ছিন্ন। এ থেকে বুঝা যায় এদেশের ৯০ ভাগ মানুষ চাই তত্ত্ববধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন। এ সরকার সশস্ত্র দলীয় ক্যাডার দিয়ে দেশের সর্বোচ্চ আইনের স্থান সুপ্রীম কোর্ট এবং জাতীয় বিবেক জাতীয় প্রেস ক্লাবে হামলা করে জাতিসত্ত্বার উপর আঘাত করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে সশস্ত্র মিছিল দিয়ে সুপ্রীম কোর্টের পবিত্র অঙ্গনকে ন্যাক্কারজনকভাবে পদদলিত করেছে এবং স্বাধীনতার উপর চরম আগাত করেছে। জাতি কখনো এদের ক্ষমা করবেনা।
ঊাসষ্টেশন চত্ত্বরে উপজেলা জামায়েতের আমির অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি এস.এম.ফজলুল হক। এম.খায়রুন্নবীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাথী উদয় কুসুম বড়–য়া,মাহবুবুল আলম চৌধুরী,নাছির উদ্দিন মুনির,মীর কাশেম,ফারুক ই আজম,আজিজ আহমদ,হায়াত দৌলত,শাহাদাত ওসমান চেয়ারম্যান,নজরুল ইসলাম,সাফাইতুল ইসলাম সাবাল,ছাত্রনেতা গিযাস উদ্দিন,তৌহিদুল ইসলাম,রহিম উদ্দিন চৌধুরী,আবুল কাশেম,জিএম আজম উদ্দিন,অহিদুল আলম,ছালাম,মুছা,আবদুল মাবুদ শিমুল,মো. রফিক,ফোরকান,বাবু,কাজী এরশাদ প্রমুখ।


আরোও সংবাদ