বিভিন্ন ক্ষেত্রে এখনো পর্যন্ত বাংলা ভাষা অবহেলিত

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারি , ২০১৭ সময় ১১:৫৭ অপরাহ্ণ

রক্ত দিয়ে যে ভাষার অধিকার আমরা প্রতিষ্ঠা করেছি স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরে এসেও দেশের সর্বোচ্চ বিচারালয়, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ সর্বস্তরে বাংলাকে পুরোপুরি চালু হয়নি। বিভিন্ন ক্ষেত্রে এখনো পর্যন্ত বাংলা ভাষা অবহেলিত।

বাংলা এমনি একটি ভাষা যার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হয়েছিল রক্ত দিয়ে। সে অধিকার আদায়ের লড়াইকে স্বীকৃতি দিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস করা হয়েছে। অথচ নিজদেশেই এ ভাষা এখনো অবহেলিত।

মঙ্গলবার (২১ ফ্রেবুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের পিএইচপি ভিআইপি লাউঞ্জে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) আয়োজিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ারের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন সিইউজে সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, বিএফইউজে সহ-সভাপতি শহীদ উল আলম, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী, সিইউজে সহ-সভাপতি নিরুপম দাশগুপ্ত, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, সিইউজের যুগ্ম সম্পাদক স্বরূপ ভট্টাচার্য, প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শহীদুল্লাহ শাহরিয়ার, সমাজসেবা ও আপ্যায়ন সম্পাদক রোকসারুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মিন্টু চৌধুরী, স্থায়ী সদস্য আবদুস শুক্কুর ও অমিত বড়ুয়া।

উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের স্থায়ী সদস্য নূর মোহাম্মদ রফিক, সিইউজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজিমুদ্দীন শ্যামল, ক্লাবের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মহসিন কাজী, স্থায়ী সদস্য সান্টু কুমার দাশ, মাখন লাল সরকার, আফজল রহিম সিদ্দিকী, জামাল উদ্দিন ইউসুফ, রাজেশ চক্রবর্তী, রেজা মোজাম্মেল ও মোহাম্মদ জহির।

বক্তারা বলেন, আদালত, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সাইনবোর্ড-ব্যানারে এবং দৈনন্দিন কাজের ক্ষেত্রে বাংলাকে অবহেলা করা হচ্ছে, অনেক ক্ষেত্রে করা হচ্ছে ভাষার বিকৃতিও।

সভা থেকে বাংলাকে সর্বস্তরে চালুর দাবি জানিয়ে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, এ ভাষা আমাদের মায়ের ভাষা, সমাজের প্রতিটি স্তরে বাংলাকে বর্জনের প্রবণতা বন্ধ করতে হবে। সাইনবোর্ড-ব্যানার এবং দাপ্তরিক কাজে বাংলার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করতে হবে।

সভার শুরুতে ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

এর আগে একুশের প্রথম প্রহরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।


আরোও সংবাদ