আনোয়ারা ছাত্রদলে এক গ্রুপে কমিটি নেই ৪ বছর, অন্য গ্রুপে স্থগিত

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ১১:২২ অপরাহ্ণ

ইমরান এমি.আনোয়ারা প্রতিনিধি:
বিবাহিত আর অছাত্রদের হাতে ঝুলে আছে আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদল। দলীয়সূত্রে জানা যায় আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদল দুভাগে বিভক্ত। সাবেক সংসদ সদস্য বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সরোয়ার জামাল নিজাম ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য প্রবীণ আইনজীবি এডভোকেট কবীর চৌধুরী কে ঘিরে আলাদা আলাদা কমিটি রয়েছে আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদলের। ২০১১ সালের জানয়ারীতে বৈরাগ ইউনিয়নের শাহজাহান কে আহবায়ক, রায়পুরের নাছির উদ্দীন কে সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক করে কবীর চৌধরী গ্রুপের ছাত্রদলের কমিটি অনুমোদন দেন দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শহীদুল ইসলাম শহীদ। এ কমিটির অনান্যরা হলো যুগ্ম আহবায়ক এম হান্নান রহিম, শাহজাহান হোসেন, ছৈয়দুল আলম, মো. ইছহাক,বোরহান উদ্দীন সুমন, এম এ রহিম শাহ, মো . কাদের,আকবর আলী সহ ১৫১ সদস্য কমিটি করা হয়। তার মধ্যে আহবায়ক শাহজাহানের নেই ছাত্রত্ব, পেরিয়ে গেছে ৪৫ বছর বয়স তার, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক নাছির উদ্দীন ব্যাস্ত ব্যবসা আর সংসার নিয়ে, এছাড়াও ছৈয়দুল আলম, মো. ইছহাক, বোরহান উদ্দীন সুমন, কাদের বিয়ে করে ব্যস্ত ঘর সংসার নিয়ে। তবে তার মাঝে ব্যাতিক্রম যুগ্ম আহবায়ক শাহজাহান হোসেন। অবিবাহিত ও নিয়মিত ছাত্র হিসাবে জেলা ছাত্রদলের সকল কর্মসূচিতে সরব উপস্থিতি জানান দেয় এম হান্নান রহিম ও শাহজাহান হোসেন। কমিটি গঠনের ৪ বছর পেরিয়ে গেলেও আদৌ সকল যুগ্ম আহবায়ক নিয়ে বসতে পারেনি আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদলের এ কমিটি। কমিটির আহবায়ক শাহজাহানের সাথে মুখ চাওয়া চাওয়ী হয় না যুগ্ম আহবায়ক এম হান্নান রািহম, রহীম শাহ , শাহজাহান হোসেন,আলী আকবরের। নিজেদের বিরোধে নগরীতে বসে আর আনোয়ারায় গিয়ে ছাত্রদলের বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে তারা তাদের সাথে ছাত্রদল নেতা হেলাল উদ্দীন, বটতলী কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আহমদ নূর, বারশত ইউনিয়নরে সাবেক আহবায়ক নুরুল ইসলাম টিটু কাজ করে যাচ্ছে। বিগত হরতাল অবরোধে ছাত্রদলের পাশাপাশি শহীদ জিয়া শিশু কিশোর ফাউন্ডেশন আনোয়ারা উপজেলার সভাপতি আহমদ নূর,ইমতিয়াজ উদ্দীন চৌধুরী রুবেল, নুরুল ইসলাম টিটু, সাইফুদ্দীন দস্তগীর, শাহজাহান বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে জিয়া শিশু কিশোর ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম দিদারের আর্থিক সহায়তায়। যদিও এ সংগঠন কে আড়াল থেকে আনোয়ারাসহ পুরো দক্ষিণ চট্টগ্রামে নেতৃত্ব দিচ্ছেন একজন তরুণ ক্রীড়া সংগঠক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক এমনটাই জানালেন জিয়া শিশু কিশোর ফাউন্ডেশন আনোয়ারা উপজেলার সভাপতি আহমদ নূর। এব্যাপরে আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক ও জেলা কমিটির সদস্য শাহজাহান হোসেন বলেন আন্দোলন সংগ্রামে জেলা ও থানার ব্যানারে নিজেদের অর্থ দিয়ে কর্মসূচি পালন করেছি। আগামীতেও যে কোন আন্দোলনে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সাথে আন্দোলন চালিয়ে যাবো। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন কমিটি আপাতত হওয়ার সম্ভাবনা নেই হলে তখন দেখা যাবে কারা আসে নেতৃত্বে।
ঠিক একি অবস্থা সরোয়ার জামাল নিজামের অনুসারী ছাত্রদলেরও। ২০০৭ এর শেষের দিকে বারখাইনের নজরুল ইসলাম কে আহবায়ক করে একটি কমিটি অনুমোদন দেন তৎকালীন দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মহসীন রানা। পরবর্তী বিএনপি নেতা জামাল উদ্দীন হত্যাকান্ড ইস্যুতে আনোয়ারা উপজেলা বিএনপি দুগ্রুপে আলাদা হয়ে গেলে ২০০৯ সালের দিকে জিয়াউল কাদের জিয়া কে সভাপতি করে একটি কমিটির অনুমোদন দেন দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক জসিম উদ্দীন। সে কমিটির অনান্যরা হলেন সিনিয়র সহ সভাপতি ইকবাল হায়দার চৌধুরী, সহ-সভাপতি শামসুল হুদা ফাহিম, সাধারণ সম্পাদক হারেছ আহমদ চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক অহিদুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ। তার মধ্যে ইকবাল হায়দার চৌধরী বিবাহিত ও একজন মুন্সী। দীর্ঘদিন কমিটি না হওয়ায় ছাত্রত্ব হারাতে এ কমিটির সবাই,ব্যস্ত যে যার মতো ব্যবসা বানিজ্য নিয়ে। সভাপতি জিয়াউল কাদের জিয়া রাজপথের পরিচিতি মুখ, বিগত দিনের আন্দোলন সংগ্রামে তার ও ইকবাল হায়দারের নেতৃত্বে সর্ববৃহৎ মিছিল করে তারা। এব্যাপরে জিয়াউল কাদের জিয়া বলেন নিজাম সাহেবের দিক নির্দেশনা মোতাবেক আনোয়ারা উপজেলা ছাত্রদল আন্দোলন সংগ্রামে ছিলো, থাকবে। তবে আগামীতে থানা কমিটি নয় বরং জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসাবে প্রতিদ্বন্ধীতায় থাকবে বলে জানান এ নেতা।

আনোয়ারা কলেজে কমিটি নেই, বটতলী কলেজের হ-য-র-ল অবস্থা
আনোয়ারা উপজেলায় কলেজ রয়েছে ২টি। তার মধ্যে ২০১১ সালের দিকে এমদাদুল হোছাইন সুমন কে আহবায়ক করে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল বটতলঅ শাহ মোহছেন আউলিয়া কলেজ ছাত্রদলের কমিটি অনুমোদন দেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শহীদুল ইসলাম শহীদ। কমিটি গঠনের পর ৩ বছর পেরিয়ে গেলেও বড় কোন শোডাউন বা কলেজ ক্যাম্পাসে করতে পারেনি ছাত্রদল কে সুসংগঠিত করতে। আনোয়ারো বিশ্বদ্যিালয় কলেজের সর্বশেষ কমিটি হয়েছিলো ২০০৩ সালে সে কািমটির মসভাপতি ডয়লো হারেছ আহমদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক ছিলো মোহাম্মদ ফারুক। বর্তমানে আনোয়ারা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি পদের জন্য লবিং করছেন মানিক মিয়া সাইমন। এব্যাপাওে যোগাযোগ করা হলে চট্টগ্রািম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শহিদুল ইসলাম শহিদ কোন মন্তব্য করতে রাজী হয়নি।