বিন হাবিব এলপিজি প্লান্টে বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ-৪

প্রকাশ:| সোমবার, ৭ নভেম্বর , ২০১৬ সময় ১০:২৬ অপরাহ্ণ

পটিয়া প্রতিনিধি ঃ পটিয়া উপজেলার কর্নফূলী থানাধীন ইছানগর এলপিজি গ্যাস ফিল্ডে বোতলজাত করণ গ্যাস ভর্তি করার সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৪ শ্রমিক আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
আহত শ্রমিকের বাড়ি একই উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়ন ও চরপাথরঘাটা ইউনিয়নের ইছানগর গ্রামের। তাদের মধ্যে হাজি নুরুল ইসলামের ছেলে মোঃ লোকমান (৩০),ইসমাঈলের পুত্র মোঃ ইদ্রিস (২৫),শেখ আহমদের পুত্র মোঃ ফয়সাল (২৪), এবং মোঃ হামিদ(১৯) নামে আরো একজন গুরুতর আহত হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়।
গুরুতর আহত শ্রমিকদের চট্টগ্রাম মা ও শিশু স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করা হয়েছে বলে মালিকসুত্রে নিশ্চিত করে। এলপিজি প্লান্টে বোতল বিস্ফোরণের পর পরই গ্যাস ফিল্ডের প্লান্টের চারদিকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় রক্ষা পায় এলপিজি গ্যাস প্লান্টে থাকা আরো প্রায় আড়াই হাজার গ্যাস সিলিন্ডার। অর্ধঘন্টা ব্যাপী চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন প্লান্ট কর্তৃপক্ষ। বিস্ফোরণে বিকট শব্দ হওয়ার পরপরই গোটা এলাকার লোকজন ভয়ে ছুটে এসে গ্যাস ফিল্ডের কর্মকর্তা কর্মচারিদের ঘেরাও করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।
এ সময় ভয়কাতুরে লোকজন ছুটাছুটি করতে গিয়ে অনেকেই আহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ৭ই নভেম্বর রাত ৮টায় সময় গ্যাস প্লান্টের ভিতরে। এদিকে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে গ্যাস প্লান্টের আশে পাশে থাকা স্থানীয় জনগন জানান, এলপিজি প্লাটের ভিতরে সিলিন্ডারে গ্যাস ভর্তির কাজ চলছিল। এ সময় গ্যাস ভর্তি একটি সিলিন্ডর হঠাৎ করে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণের বিকট শব্দে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। এ সময় অলৌকিক ভাবে গ্যাস ফিল্ডে থাকা আরো প্রায় ২হাজার সিলিন্ডার রক্ষা পায়।
ঘটনার সংবাদ পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে বিক্ষুব্ধ জনতা তাৎক্ষণিক গ্যাস ফিল্ড ঘেরাও করে রাখে। প্লান্টের একটি সূত্র জানায়, দুর্ঘটনার সময় এলপি প্লান্টের কর্মরত ছিলেন আহত শ্রমিকেরা।তবে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ঘটনা দায়িত্ব অবহেলা নাকি দুর্ঘটনা সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এ বিষয়ে কর্নফূলী থানার ওসি রফিকুল ইসলাম পিপিএম জানান, বিন হাবিব নামে একটি সিলিন্ডার কোম্পানীতে গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটলে এতে আগুন ধরে যায়। পরে শ্রমিকরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণ করলে বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পায়। এতে ৪জন অগ্নিদগ্ধ হয়।


আরোও সংবাদ