বিতর্কিত ‘নো’ বলের ব্যাখ্যা দিল আইসিসি

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২০ মার্চ , ২০১৫ সময় ০৭:০০ অপরাহ্ণ

২০১৫ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ৩০২ রান সংগ্রহ করে। জবাবে বাংলাদেশ অলআউট হয়ে যায় ১৯৩ রানে। ভারত জয় পায় ১০৯ রানে। তবে সবকিছু ছাপিয়ে আম্পায়ারদের বাজে আম্পায়ারিং আলোচনায় উঠে আসে।

বিষয়টি নিয়ে অসন্তোস প্রকাশ করেন খোদ আইসিসির সভাপতি আ হ ম মুস্তফা কামাল। সবচেয়ে বেশি সমালোচনা করা হয়েছে রোহিত শর্মা আউট হওয়ার পরও আম্পায়ার ‘নো’ বল কল করার বিষয়টি নিয়ে।

এ বিষয়ে শুক্রবার ব্যাখ্যা দিয়েছে আইসিসি। তাদের মতে বিষয়টি ফিফটি-ফিফটি ছিল। আম্পায়ার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটাই সঠিক। এ বিষয়ে আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন বলেন, ‘নো বলের সিদ্ধান্তটি আসলে একটি ফিফটি-ফিফটি কল ছিল। ক্রিকেট খেলার নিয়মানুসারে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। এবং তাদের সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা করতে হবে। এটাই ক্রিকেটের ‘গেম স্পিরিট’। আম্পায়ররা তাদের সর্বোচ্চ জ্ঞান ব্যবহার করে সিদ্ধান্ত নেন এবং সেরা সিদ্ধান্তটা দেওয়ার চেষ্টা করেন। তাদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কথা বলা কিংবা বিরোধিতা করাটা ভিত্তিহীন। এমনটি কখনোই কাম্য নয়।’

ব্যক্তিগত ৯০ রানের সময় রুবেল হোসেনের বলে নাসির হোসেনের হাতে ক্যাচ দেন রোহিত শর্মা। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে ‘নো’ বল কল করেন। রিপ্লেতে দেখা যায় বলটি রোহিতের কোমরের নিচে ছিল। কিন্তু আম্পায়ার কোমরের উপরে বলে ‘নো’ বল কল করেছেন। এর আগে সুরেশ রায়নার একটি এলবিডব্লিউ এর আবেদন নাকচ করে দেন আম্পায়ার ইয়ান গোল্ড।

সবশেষ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের একটি ক্যাচ নেন ভারতের শেখর ধাওয়ান। ধাওয়ানের পা বাউন্ডারি লাইন ছুঁলেও আম্পায়াররা মাহমুদউল্লাহকে আউট দেন। সবকিছু মিলিয়ে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ বেশ বিতর্ক ছড়ায়। যে বিতর্ক ছুঁয়ে যায় আইসিসি ও আইসিসির নিরপেক্ষতাকে।


আরোও সংবাদ