বিজিবি সদস্যের খোঁজ মেলেনি, অভিযানে নৌবাহিনী

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর , ২০১৫ সময় ০৯:১৬ অপরাহ্ণ

বান্দরবানে থানছিতে নৌকা ডুবি

বান্দরবান প্রতিনিধি॥
বান্দরবানের থানছিতে সাঙ্গু নদীতে নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ বিজিবি সদস্য জুয়েল রানা (২৪) খোঁজ এখনো মেলেনি। চট্টগ্রাম নৌবাহিনীর লে: কর্নেল আলীমুজ্জামানের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি ডুবুরী দল ঘটনাস্থলে নিখোঁজ বিজিবি সদস্য এবং খুয়ে যাওয়া অস্ত্র-গুলির সন্ধানে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। এছাড়াও স্থানীয় পাহাড়ী-বাঙ্গালী জেলেরাও উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা পোনে সাতটা পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি।
নিরাপত্তা বাহিনী জানায়, জেলার থানছি উপজেলার তীন্দু ইউনিয়নের বড়পাথর এলাকায় সাঙ্গু নদীতে নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ বিজিবি সদস্যের খোঁজে নৌবাহিনীর ডুবুরী দল, বিজিবিন এবং স্থানীয় অভিজ্ঞ জেলেরা উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। ঘটনাস্থল’সহ আশপাশের কয়েক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে সাঙ্গু নদীতে অভিযান চালানো হচ্ছে। নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ বিজিবি সদস্য জুয়েল রানার পরিবার চুয়াডাঙ্গা থেকে বান্দরবান এসে পৌছেছেন।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন বান্দরবান ৬৯ সেনা রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেরল নকীব আহমেদ চৌধুরী এবং বান্দরবান বিজিবি সেক্টর কমান্ডার অলিউর রহমান’সহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ঘটনাস্থল’সহ আশপাশের এলাকাগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।
বিজিবি সেক্টর কমান্ডার অলিউর রহমান জানান, উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। তবে সাঙ্গু নদীতে প্রবল ¯্রােত এবং নদীতে পাথরে ভরপুর হওয়ার কারণে উদ্ধার তৎপরতা কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। নৌবাহিনীর ডুবুরী দল এবং স্থানীয় জেলেরাও উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছেন।
প্রসঙ্গত: গত বৃহস্পতিবার জেলার থানছি উপজেলার মিয়ানমার সীমান্তের সাঙ্গু সংরক্ষিত বনাঞ্চলে সন্ত্রাসী তৎপরতা দমনে অভিযান শেষে বিজিবির ৭৭ সদস্যের একটি দল ১০টি নৌকাযোগে বড়মদক থেকে থানছি উপজেলা সদরে ফেরার সময় প্রবল ¯্রােতে তীন্দু ইউনিয়নের বড়পাথর এলাকায় একটি নৌকা উল্টে যায়। এতে নৌকায় থাকা সাত সদস্যের মধ্যে ছয়জন উঠতে পারলেও জুয়েল রানা (২৪) নামের এক বিজিবি সদস্য নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় নৌকা থেকে বিজিবির দুটি অস্ত্র এবং ১২০ রাউন্ড গুলিও নদীতে হারিয়ে যায়। এরআগে গত ২৬ আগস্ট বান্দরবানের থানছি উপজেলার বড়মদক এলাকায় বিজিবির একটি টহল দলের ওপর মিয়ানমারের বিচ্ছিন্নতাবাদি দল অরাকান আর্মির সদস্যরা গুলি বর্ষণ করে। এতে বিজিবির দুই সদস্য আহত হয়। এ ঘটনার পর সন্ত্রাসী তৎরতা দমনে মিয়ানমার সীমান্তে যৌথ বাহিনী অভিযান চালাচ্ছে।


আরোও সংবাদ