৭ দিনের মধ্যে বিচারক প্রত্যাহারের দাবী

প্রকাশ:| সোমবার, ১৬ জানুয়ারি , ২০১৭ সময় ০৯:৪৭ অপরাহ্ণ

বিচারক প্রত্যাহার প্রসংগে আইনজীবী সমিতির সাধারণ সভা

চট্টগ্রামের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল নং ১ ও ২ এর মাননীয় বিচারক জনাব মোঃ রফিকুল ইসলাম ও জনাব মোঃ সেলিম মিয়ার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগে সমিতির কার্যকরী পরিষদের বিগত ২৮.১২.১৬ তারিখের সভায় উক্ত বিচারকদ্বয়কে ৭ দিনের মধ্যে চট্টগ্রাম থেকে প্রত্যাহারের জন্য মাননীয় প্রধান বিচারপতির বরাবরে আবেদনপূর্বক তার অনুলিপি মাননীয় আইন মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে প্রেরণের পরও অদ্যাবধি তাদেরকে চট্টগ্রাম থেকে প্রত্যাহার করা হয়নি। যার কারনে উক্ত দুই ট্রাইব্যুনালের বিচারে চরম অচলাবস্থার সৃষ্টি হয় এবং জনগণের ভোগান্তি চরমে পৌঁছে। তৎপ্রেক্ষিতে উক্ত বিচারদ্বয়কে প্রত্যাহার সংক্রান্ত বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহনের নিমিত্তে অদ্য ১৬.০১.১৭ তারিখ দুপুর ২টায় সমিতির ৩নং মিলনায়তনে বিপুল সংখ্যক আইনজীবীদের উপস্থিতিতে সমিতির সভাপতি মো. কফিল উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এস.এম. জাহেদ বীরু ও সঞ্চালনায় ছিলেন সহ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রাসেল। উক্ত সাধারণ সভায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল নং ১ ও ২ এর মাননীয় বিচারকদ্বয়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির বিষয়ে সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রতন কুমার রায়, বিজ্ঞ সিনিয়র সদস্যগণ যথাক্রমে এ.এস.এম. বদরুল আনোয়ার, তারিক আহমদ, মোহাম্মদ হাসান আলী, কাজী মোহাম্মদ হাছান, খোরশেদুল আলম শিকদার, রিক্তা বড়–য়া, টি.আর খান, শহীদুল ইসলাম সুমন, মো. শফিউল আজম বাবর, মো. পেয়ার হোসেন পিয়ারু বক্তব্য তুলে ধরেন। বক্তাগণ আশা প্রকাশ করেন যে, মাননীয় প্রধান বিচারপতি, মাননীয় আইন মন্ত্রী মহোদয় ও সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি গুরুত্ব অনুধাবন করে বিচার বিভাগ ও আইন আদালতের মর্যাদা রক্ষার স্বার্থে উক্ত দূর্নীতিবাজ বিচারকদ্বয়কে অবিলম্বে চট্টগ্রাম থেকে প্রত্যাহারপূর্বক তাদের দূর্নীতির ও অনিয়মের বিষয়সমূহের তদন্ত করে তাদেরকে বিচারবিভাগ থেকে প্রত্যাহার করবেন ও যথাযথ বিচারের সম্মুখীন করবেন। পরবর্তী চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহনের জন্য আগামী ১৮.০১.২০১৭ইং তারিখ পর্যন্ত সাধারণ সভা মুলতবী রাখা হয়