বিএসআরএমকে এক লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৬ মে , ২০১৫ সময় ০৭:২০ অপরাহ্ণ

ফুটপাত ও নালা দখল করে কারখানার সামনে অবৈধভাবে একাধিক স্ল্যাব বসানোর দায়ে রড প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলসকে (বিএসআরএম) এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

মঙ্গলবার বিকালে নগরী বায়েজিদ বোস্তামি সড়কে প্রতিষ্ঠানটির কারখানায় অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা করেন করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিয়া শিরিন।

এছাড়া স্ল্যাবের কিছু অংশ ভেঙ্গেও দেয় ভ্রাম্যমান আদালত।

সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিয়া শিরিন বলেন,‘কোন ধরণের অনুমতি ছাড়া বড় আকৃতির স্ল্যাব নির্মাণ করেছে বিএসআরএম। ফুটপাত দখল করে ঢালায় করে স্ল্যাব নির্মাণ করায় ফুটপাতে মানুষ ও নালায় পানি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। এ জন্য তাদেরকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’

সোমবার প্রতিষ্ঠানটির বসানো অবৈধ স্ল্যাব ভেঙ্গে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। তিনি বলেন,‘প্রতিষ্ঠানটি স্ল্যাব বসানোর ক্ষেত্রে অনিয়ম করেছে।’

করপোরেশন সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ১২ ডিসেম্বর ২২৩ বায়েজিদ বোস্তামি সড়কে হালিম ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে শর্তসাপেক্ষে নিজ খরচে লোহার স্ল্যাব নির্মাণের অনুমতি দেয় সিটি করপোরেশন। কিন্তু বাস্তবে সেখানে এ নামের কোন প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব নেয়।

প্রতিষ্ঠানটির নামে অনুমতি নিয়ে কারখানার সামনে স্ল্যাব নির্মাণ করেছে বিএসআরএম। স্ল্যাব নির্মাণে ১২টি শর্ত জুড়ে দেয় সিটি করপোরেশন। কিন্তু একটি শর্তও মানা হয়নি।
Screenshot_19
শর্তে উল্লেখ আছে,‘আরসিসি স্ল্যাব নির্মাণ করা যাবে না। শুধুমাত্র ৮-১০ সুতার লোহার রড দ্বারা গ্রেটিংসের মাধ্যমে স্ল্যাব নির্মাণ করতে হবে।’ বিএসআরএম শর্ত উপেক্ষা করে আরসিসি ঢালাই করে স্ল্যাব নির্মাণ করেছে।

অন্য আরেকটি শর্তে উল্লেখ আছে,‘স্ল্যাবের পরিমাপ কোন অবস্থায় দৈর্ঘ্যে ৩০ ফুট ও প্রস্থে ৬ ফুট ৬ ইঞ্চির বেশি নির্মাণ করা যাবে না এবং নালার উচ্চতা কমানো যাবে না। কোন অবস্থাতেরই নালার জায়গা ছোট করা যাবে না। পানি চলাচলে কোন বাধা সৃষ্টি করা যাবে না বা নালার গতিপথ পরিবর্তন করা যাবে না।’ কিন্তু এসব শর্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছে বিএসআরএম।
টাকা জরিমানা
করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজিয়া শিরিন বলেন,‘স্ল্যাব নির্মাণে কোন ধরণের ‍অনুমতি নেয়নি বিএসআরএম। যে অনুমতিপত্রটি তারা দেখাচ্ছে তার সঙ্গে বাস্তবের কোন মিল নেই। অনুমতিপত্রে উল্লেখিত শর্তগুলো তারা পড়ে দেখেছে বলেও মনে হচ্ছে না।’

করপোরেশনের সহকারি ভূমি কর্মকর্তা এখলাছ উদ্দিন আহমদ বলেন,‘বিএসআরএম অন্য একটি প্রতিষ্ঠানের নামে লোহার স্ল্যাব নির্মাণের অনুমতি নিয়ে আরসিসি ঢালাই করে একাধিক স্ল্যাব বসিয়ে শর্ত ভঙ্গ করেছে। একই সঙ্গে নির্দিষ্ট আকারের চেয়ে বড় স্ল্যাব নির্মাণ করে রাজস্বও ফাঁকি দিয়েছে।’