বিএনপি প্রার্থী রাজীব’র গণসংযোগ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৩ মে , ২০১৬ সময় ১১:০৪ অপরাহ্ণ

রাজীব
কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া প্রতিনিধি:
পুরুষদের পাশাপাশি নারী ভোটারদের কাছে বেশি গ্রহনযোগ্য ও জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন রাজাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী তারেক মাহমুদ চৌধুরী রাজিব। মাত্র কয়েক মাস পুর্বে সে তার সেই জনম দুখীনি মমতাময়ী মা’কে হারিয়েছেন। চার দেউয়ালে বন্দি ছিল তার জীবন। রাজাপালং ইউনিয়নের চার চার বারের ইউপি চেয়ারম্যান চাচা শাহকামাল চৌধুরী অসুস্থতার কারণে পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সেই মা হারানোর বেদনায় কাতর নিষ্পাপ ছেলেটি নিতে হয়েছে হিমালয় পাহাড়ের দায়িত্ব। বৃহত্তর রাজাপালং ইউনিয়নে বিএনপি’র মনোনীত ধানের শীষের একক প্রার্থী হিসেবে প্রতিটি মাঠে-ঘাটে, গ্রামে-গঞ্জে, পাড়ায়-মহল্লায়, অলিতে-গলিতে গণ সংযোগ করে যাচ্ছেন রাজীব। তবে তার পিতা কক্সবাজার জেলা বিএনপি’র সভাপতি, সাবেক উখিয়া-টেকনাফের সাংসদ আলহাজ্ব শাহজাহান চৌধুরীর রয়েছেন বিশাল বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন। এবং রাজ পরিবারের সেই ঐতিহ্য এখনো আছেন কানায় কানায় ভরা। পাশাপাশি রাজীবের মেঝ চাচা শাহ জালাল চৌধুরী উখিয়া উপজেলার একজন সফল সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে উখিয়াবাসীর কাছে সমাদৃত। আর একদম ছোট চাচা উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সরওয়ার জাহান চৌধুরীর জনপ্রিয়তা আকাঁশ চুম্বি। সব মিলিয়ে তার একটি বিশাল জনসমর্থন এবং পরিচিতি রয়েছে মানুষের কাছে। রাজীব বৃহস্পতিবার সকালে প্রতিদিনের ন্যায় গণসংযোগ করতে বের হলে উখিয়া স্টেশনে দেখা হয় এক হত দরিদ্র মহিলা ভোটারের সাথে। নাম তার ছখিনা বিবি। সে কেন জানিনা এ প্রতিবেদকের সামনে রাজীবকে দীর্ঘক্ষণ চেয়ে থাকার পর আবেগ-আপ্লুত হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঝড়িয়ে ধরলেন বুকে। কাটলেন অশ্রু জ্বলে। তার কান্নায় ভেঙ্গে পড়লেন চেয়ারম্যানপ্রার্থী রাজীবও। হারানো মায়ের স্মৃতিময়ী সেই কথা গুলো নাড়া দিল তার বুকে। কান্না আর ধরে রাখতে পারলেন না রাজিব। কানছেন একই তালে। দেখতে লাগল শতশত দর্শক নিরবে। ওই মহিলাটি দোয়া করলেন রাজীবকে পিতার মতো বেড়ে উঠতে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে মহিলাটির কাছে এত কিসের ব্যথা, কেউ জানেনা। রাখেনি কেউ এসব অসহায় হতদরিদ্র পরিবারের খবর। কিন্তু রাজীব কি রাখবে তাদের খবর?