বিএনপি কার্যালয় ঘিরে ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ০১:৫১ অপরাহ্ণ

বিএনপি কার্যালয় ঘিরে ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদারচলমান টানা ১৪৪ ঘণ্টার অবরোধ ও জামায়াতের সকাল-সন্ধ্যা হরতালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির প্রধান কার্যালয়ে কোনো নেতাকর্মীর দেখা না মিললেও ব্যাপক সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের দেখা গেছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের অবরোধের চতুর্থ দিন চলছে মঙ্গলবার।

অন্যদিকে যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লার মৃত্যু পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে দলটির ডাকা হরতালের দ্বিতীয় দিন চলছে। সকালে ফকিরেরপুল-নয়াপল্টন-বিজয়নগর এলাকার বিভিন্ন গলিতে দেখা যায়, পুলিশ দল বেঁধে মহড়া দিচ্ছে। সোমবারের মতোই দিনের বেলায় এমন বিপুল সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। এ সময় এপিসি গাড়ি-জলকামান মোতায়েন থাকতে দেখা যায়। এসব এলাকা দিয়ে চলমান সিএনজিচালিত অটোরিকশা-মোটরসাইকেল-রিকশা থামিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে থাকা বিভিন্ন ব্যাগ তল্লাশি করছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এমপি ও রফিকুল ইসলাম মিয়াসহ বিএনপির সিনিয়র ৫ নেতাকে গ্রেফতারের পর থেকে গ্রেফতার আতঙ্কে গা ঢাকা দেন অধিকাংশ শীর্ষ নেতা। এরপর পর্যায়ক্রমে স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রি. জে. (অব.) হান্নান শাহ, দফতরের দায়িত্বে থাকা যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ এবং ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকা মহানগর কমিটির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা গ্রেফতার হয়ে গেলে বাকিদেরও দেখা মিলছে না কোথাও। গত অবরোধের প্রথম থেকেই লাপাত্তা ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ধারাবাহিক অনুপস্থিতিতে বর্তমান মুখপাত্রের দায়িত্বে থাকা বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদও কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসছেন না। অবশ্য মির্জা ফখরুল অনিয়মিতভাবে আর সালাহউদ্দিন আহমেদ দিনশেষে অজ্ঞাত স্থান থেকে ভিডিও বার্তা-বিবৃতি দিয়ে আন্দোলনের দায় সারছেন।