বিএনপির জিয়ার শাহাদাত বার্ষিকী পালন

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৩০ মে , ২০১৭ সময় ০৪:৪৬ অপরাহ্ণ

স্বাধীনতার মহান ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীর উত্তম)-এর ৩৬তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে বার্ষিকী উপলক্ষ্যে চট্টগ্রাম মহানগর ও উত্তর দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র উদ্যোগে মঙ্গলবার নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

মহানগর বিএনপির উদ্যোগে দোয়া মাহফিল, খাদ্য বিতরণ, এতিমদের জন্য ইফতার পার্টি, এবং আলোচনা সভা ও মেজবান অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নগরীর পাঁচলাইশস্থ দি কিং অব চিটাগাং এ ইফতার মাহফিল, আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহদাত হোসেন।

????????????????????????????????????

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্করের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব জাফরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম , চট্টগ্রাম মহানগর বিএনিপর সিনিয়র সহ সভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান, বিএনপি নেতা ডা. খুরশিদ জামিল, এনামুল হক, চাকসু ভিপি নাজিম উদ্দীন , নুরুল আমিন, ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন, মো: মিয়া ভোলা, এম.এ আজিজ, এডভোকেট কফিল উদ্দীন, জাহিদুল করিম কচির, এস.এম সাইফুল আলম, হারুন জামান, সবুক্তিগীন ছি দ্দিকী মক্কী, ২০ দলীয় জোট নেত্রীবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আ.জ.ম ওবাইদুল্লাহ, নুর মোহাম্মদ, ইলিয়াছ চৌধুরী, ওসমান গনি সিকদার, আবু মোজাফ্ফর মোহাম্মদ আনাছ, ফিরোজ কবির লিটন, বিএনপি নেতা শফিকুর রহমান স্বপন, ইস্কান্দর মির্জা, আর.ইউ চৌধুরী শাহীন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, শামশুল হক, আনোয়ার হোসেন লিপু, মনোয়ারা বেগম মনি, কামরুল ইসলাম, গাজী মোহাম্মদ সিরাজুল্লাহ, বেলায়েত হোসেন বুলু প্রমুখ।

উত্তর জেলা বিএনপি (আসলাম গ্রুপ) : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল চট্টগ্রাম উত্তর জেলার উদ্যোগে ৩০ মে বাদ জোহর শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৬তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল দলীয় কার্যালয় সংলগ্ন জামে মসজিদে জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ছালাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি, চাকসু ভিপি মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, জেলা বিএনপি নেতা যথাক্রমে এড. আবু তাহের, মুহাম্মদ সেকান্দর চৌধুরী, কাজী মোঃ সালাহ উদ্দিন, নবাব মিয়া চেয়ারম্যান, অধ্যাপক কুতুব উদ্দিন, মুহাম্মদ জাকির হোসেন, এম.এম. ফারুক, সৈয়দ মোস্তফা আলম মাসুম, এম.আর চৌধুরী মিল্টন, মুহাম্মদ আবু জাফর, ফজলুল করিম চৌধুরী, মামুনুর রশিদ, শাহীনুল ইসলাম স্বপন, ফজলুল হক, বদিউল আলম বদরু, রবিউল হক, ছাত্রদল নেতা নেছারুল ইসলাম নাজমুল, মামুনুর রশিদ মামুন, আনিস আকতার টিটু, আবুল কালাম আজাদ, মান্নান হোসেন, সুজাউদ্দৌলা সজিব, মোঃ টুটুল, মোঃ আরিফ, মুহাম্মদ মাসুম নুরুল কবির রিফাত, মোঃ ইদ্রিচ, মুহাম্মদ সাইফুল আলম, মুহাম্মদ ফরহাদ, মুহাম্মদ জাহেদ, তানিমুল ইসলাম সায়েম, মোকারম কুতুবী প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

বক্তাগণ বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের বাকশাল রাজনীতির অবসান ঘটিয়ে বহুদলীয় গণতন্ত্রের সুচনার মাধ্যমে বাংলাদেশের জনসাধারণের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। ১৯ দফা কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশকে তলা বিহীন ঝুড়ি থেকে উদ্ধার করে জনকল্যাণে উৎপাদনমুখী রাজনীতির সূচনা করেন। ক্ষণজন্মা এ নেতা বাংলাদেশের আনাচে কানাচে ঘুরে দেশের সমস্যা চিহ্নিত করে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলেন বিধায় দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রে ৩০ মে, ১৯৮১ সালে চট্টগ্রামে নির্মমভাবে নিহত হয়েছেন। তার ধারাবাহিকতায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আজকে বাংলাদেশের ইতিহাসে তিনবারের প্রধান মন্ত্রী হিসেবে জনগণের মনি কোঠায় স্থান করে নিয়েছেন। শহীদ জিয়া বাংলাদেশের বহুদলীয় গণতন্ত্রের সূচনা না করলে অনেকের গাড়ীতে আজকে জাতীয় পতাকা উড়াতে পারত না বলে বক্তাগণ উল্লেখ করেন। মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন দলীয় কার্যালয় সংলগ্ন জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুহাম্মদ এহসান। বিশেষ মুনাজাতে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আত্মার শান্তি এবং দেশের গণতান্ত্রিক মনা জনগণের মঙ্গল কামনা করা হয়।

 

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা (জাফর গ্রুপ):: মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীর উত্তম)-এর ৩৬তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ঘোষিত কর্মসূচির ২য় দিনে দোস্ত বিল্ডিংস্থ দলীয় কার্যালয়ে অদ্য ৩০ মে সকাল ১০টায় খতমে কোরআন ও মিলাদ মাহফিল শেষে সকালে ১১.৩০টায় চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্ব জাফরুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতির বক্তব্যে জাফরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, শহীদ জিয়া ও জিয়া পরিবারের সাথে চট্টগ্রামের নাড়ী ভূড়ির সম্পর্ক কারণ শহীদ জিয়া চট্টগ্রামের মাটি থেকে মহান স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং চট্টগ্রামের মাটিতেই শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। তাই জিয়া ও জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে কোন প্রকার ষড়যন্ত্র বরদাস্ত করবেনা বীর চট্টলার মুক্তিকামী জনতা। শহীদ জিয়ার আদর্শকে বুকে ধারণ করে অবরুদ্ধ গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনে সামিল হতে হবে।
আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ ইদ্রিস মিয়া, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ এনামুল হক, সহ-সাধারণ সম্পাদক এড. নুরুল ইসলাম, প্রকাশনা সম্পাদক এড. মো. আবু তাহের, বিএনপি নেতা আলহাজ্ব মো. মোস্তাফিজুর রহমান, আবুল হোসেন, জেলা যুবদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা শফিকুল ইসলাম রাহী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মুহাম্মদ শহীদুল আলম শহীদ, আনোয়ারা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সালাহ উদ্দিন সুমন, সাধারণ সম্পাদক নঈম উদ্দিন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আবু তৈয়ব চৌধুরী, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সদস্য এম. হান্নান রহিম, আব্বাস উদ্দিন, অহিদুল আলম পিপলু, তৌহিদুল আলম, লোকমান উদ্দিন, আবদুল হান্নান, খোরশেদুল হক চৌধুরী প্রমুখ।
আলোচনা সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, আগামী ১৩ জুন ১৭ রমজান রোজ মঙ্গলবার শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান এর ৩৬ তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর শেষ দিনের কর্মসূচি হিসেবে জেয়াফত ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান (বীর উত্তম)-এর ৩৬তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের উদ্যোগে অদ্য ৩০ মে দুপুর ২টায় আত্মার মাগফেরাত কামানয় দোয়া মাহফিল ও বিশেষ মোনাজাত শেষে জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মুহাম্মদ শহীদুল আলম শহীদ এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য হান্নান রহিম তালুকদার, আব্বাস উদ্দিন, অহিদুল আলম পিপলু, আবদুল হান্নান, তৌহিদুল ইসলাম খান, মো. লোকমান উদ্দিন, খোরশেদুল হক চৌধুরী, মো. ফারুক মিয়া, আহমদ নূর, লোকমান হাকিম, সাহাব উদ্দিন, নুরুল হাকিম, মো. শাহজাহান, মো. কাইয়ুম, রিদোয়ান, শাহরিয়ার সাব্বির, হাবিব, আসিফ, রবিউল হোসেন প্রমুখ।


আরোও সংবাদ