বিএনপিকে দমিয়ে রাখার জন্য প্রশাসনকে ব্যবহার করছে

প্রকাশ:| শনিবার, ১৭ মে , ২০১৪ সময় ১০:৪৮ অপরাহ্ণ

বিএনপিকে দমিয়ে রাখার জন্য প্রশাসনকে ব্যবহার করছেবিএনপি’র কর্মসূচিতে এই সরকার ভয় পায়। বিরোধী দল যখনই কোন কর্মসূচি ঘোষণা করে তখনই প্রশাসন বাঁধা দেয়। সরকার বিএনপিকে দমিয়ে রাখার জন্য প্রশাসনকে ব্যবহার করছে। মামলা হামলা নির্যাতনের মাধ্যমে জাতীয়তাবাদি শক্তিকে দমিয়ে রাখা যাবে না।

নগর ছাত্রদল ঘোষিত সাংগঠনিক সপ্তাহ ও সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচির অংশ হিসেবে চকবাজার ওয়ার্ডের সাংগঠনিক সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা। শনিবার বিকালে নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নগর বিএনপির সহ সভাপতি শামসুল আলম। প্রধান বক্তা ছিলেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন।

শামসুল আলম বলেন, জাতীয়তাবাদি ছাত্রদলকে আরো শক্তিশালী গড়ার লক্ষ্যে ইউনিট পর্যায় থেকে কাজ শুরু করতে হবে। এই সরকার বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর নির্যাতন নিপীড়ন চালাচ্ছে। রাজপথে এর দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে হবে। জাতীয়তাবাদি ছাত্রদলকে আগামীদিনের রাজপথের আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।

ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, বিএনপি কোন কর্মসূচি ঘোষণা করলেই সরকার ভয় পায়। প্রশাসনকে ব্যবহার করে বিএনপির কর্মসূচিতে বাঁধা দেয়। সরকার বিএনপিকে দমিয়ে রাখার জন্য প্রশাসনকে ব্যবহার করছে। মামলা হামলা নির্যাতনের মাধ্যমে বিএনপিকে দমিয়ে রাখা যাবে না। যত বাঁধা আসবে, আন্দোলন তত বেশি বেগবান হবে।

তিনি জাতীয়তাবাদি ছাত্রদলের নেতাকর্মীদেরকে আরো সুসংগঠিত হয়ে ওয়ার্ডে-ওয়ার্ডে, ইউনিটে-ইউনিটে জাতীয়তাবাদি ছাত্রদলের দুর্গ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন জামান, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সাধারণ সম্পাদক এস এম সালাউদ্দিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, চকবাজার ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি সবুক্তিগীন সিদ্দিকী মক্কী, কেন্দ্রীয় যুদলের সদস্য শাহজাহান কবির শাহীন, বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কায়সার লাভু, ১৯ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাজী নবাব খান, চকবাজার ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুজ্জামান জুনু, নগর ছাত্রদলের সহ সভাপতি জিয়াউর রহমান জিয়া, সাবেক ছাত্রদল নেতা আ খ ম জাহাঙ্গীর, এমদাদুল হক বাদশা, মুস্তাকিম মাহমুদ, মাঈনুদ্দিন পারভেজ, মো. আলাউদ্দিন, মো. ইউসুফ, তানভীর, সুজন দত্ত, বাদশা, মিঠু, তানিম, ফজলুল আতাউল বাবু, জাবেদ, কামরুল, আছিফ, মাসুদ, নোমান, বাপ্পী, ছোবহান।


আরোও সংবাদ