বিআরটিসির বিতল বাসসহ ৩টি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ

প্রকাশ:| সোমবার, ২ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ১০:২৯ অপরাহ্ণ

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের হরতালের দ্বিতীয় দিন সোমবার রাজধানীর গুলশান মিরপুর ও দয়াগঞ্জে গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে দুর্বৃত্তরা। তবে এসব ঘটনায় কেউ হতাহত হননি। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। এতে দুই পথচারী আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটের দিকে গুলশান-১ নম্বর ডেসকো অফিসের সামনে বিহঙ্গ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে (ঢাকা মেট্রো ব ১১-৭২১০) আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে বিআরটিসির একটি দ্বিতল বাসে। সোমবার রাত ৮ টার দিকে মিরপুর-১১ নম্বরে ওই বাসে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে। রাত ৮টার দিকে মিরপুর বাংলা কলেজের সামনে একটি যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে বিআরটিসির একটি দ্বিতল বাসেআগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে ফায়ার সর্ভিসের দু’টি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। সন্ধ্যা পৌনে ৮টার দিকে এ অগ্নিসংযোগ করা হয়। তবে সেটি কোন পরিবহনের বাস তা এখনো জানা যায়নি। এদিকে রাত ৯ টার দিকে পল্টন বটতলা গলিতে যাত্রীবাহী বাস লক্ষ্য করে একটি পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে দুর্বৃত্তরা। তবে সেটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ায় বাসটিতে পড়েনি। তবে রাস্তায় আগুন ধরে গেলে পুলিশ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এর আগে দয়াগঞ্জে যাত্রীবাহী বাসে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে দুর্বৃত্তরা। দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়া রামপুরা-মালিবাড় সড়কের হাজীপাড়া পেট্রল পাম্পের কাছে চারটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পরপর ৫ থেকে ৭টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে পুরান ঢাকার জজ কোর্টের পাশের সড়কে। দুপুর ১২টা ৫ মিনিটের দিকে এই ঘটনা ঘটে। এতে দুই পথচারী আহত হয়েছেন। নয়াপল্টন ভাসানী ভবনের সামনে বিকট শব্দে পরপর দুটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার রাত ৮টা ১০ মিনিটে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।