বাস মালিক ও চালকের বিরুদ্ধে আদালত হত্যা মামলা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ , ২০১৭ সময় ১১:৩৬ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় এক শিক্ষিকার মৃত্যুর ঘটনায় বাস মালিক ও চালকের বিরুদ্ধে আদালত হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (০৯ মার্চ) চট্টগ্রামের পঞ্চম মহানগর হাকিম আল ইমরানের আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন নিহত শিক্ষিকা তানজিনা কামালের স্বামী আইনজীবী কামাল আহমেদ। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে এজাহার হিসেবে মামলাটি গ্রহণের জন্য বাকলিয়া থানাকে আদেশ দিয়েছেন।

মামলায় গাড়ির চালক ও মালিকের বিরুদ্ধে অবহেলাজনিত মৃত‌্যু ঘটানো (পরিকল্পিত নরহত্যা নয়) দন্ডবিধির ৩০৪ (খ) এবং ৩৩৮(ক) ও ১০৯ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে চালক-মালিককে অজ্ঞাতনামা হিসেবে আরজিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার বাদি কামাল আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে মৃত্যু ঘটানোর অভিযোগে হত্যা মামলা দায়ের করেছি। আদালত নিজেই বলেছেন সরাসরি হত্যার অভিযোগে ৩০২ ধারায় মামলা দায়ের করা উচিৎ ছিল। আমি যে ধারায় করেছি এর সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

মানিকগঞ্জে চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব মিশুক মুনীর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের পর একই ধারায় মামলা দায়ের হয়েছিল। ওই মামলায় বাস চালকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়।

নগরীর কর্ণফুলী থানার চরলক্ষ্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা তানজিনা কামাল গত বছরের ১০ নভেম্বর শাহ আমানত সেতু এলাকায় মারা যান। ওইদিন দুপুরে তানজিনা স্কুল থেকে নগরীর বাসায় ফেরার পথে তাকে বহনকারী হিউম্যান হলার মাহেন্দ্রকে প্রিয়া এন্টারপ্রাইজ নামে একটি বাস ধাক্কা দেয়। এতে তানজিনাসহ ঘটনাস্থলে দুজন মারা যায়।

দুর্ঘটনার পর আটক বাসটি (চট্টমেট্রো-চ-০৭০২) এখনও বাকলিয়া থানায় আছে বলে মামলার আরজিতে উল্লেখ আছে।

তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন নিহতের ঘটনায় এক বাস চালকের যাবজ্জীবন এবং সাভারে ট্রাকচাপা দিয়ে এক নারীকে হত্যার দায়ে ট্রাকচালক মীর হোসেনের ফাঁসির রায় হয় গত ফেব্রুয়ারিতে।

এর প্রতিবাদে ২৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সারা দেশে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির কর্মসূচি দেয়।

দুইদিনের কর্মবিরতিতে জনসাধারণের সীমাহীন ভোগান্তি নিয়ে দেশে সমালোচনার ঝড় উঠে।