বাল্যবিয়ে বন্ধ

প্রকাশ:| বুধবার, ৪ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ০৭:৪০ অপরাহ্ণ

বর-কনের আসর রেডি। কমিউনিটি সেন্টারে চলছে জোর আয়োজন। খাওয়া দাওয়া থেকে আড্ডা দুই পক্ষের মধ্যে আরও কতোকিছু। হলজুড়ে সাজ সাজ রব। একটু পরেই আসবে বর-কনে। এমন সময় সেখানে হাজির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নেতৃত্বে সমাজসেবা কর্মকর্তা থেকে জনপ্রতিনিধি।

এসেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বর-কনের অভিভাবকদের নির্দেশ দিলেন বিয়ে বন্ধ করতে। কারণ কণের বয়স মাত্র ১৫। এটি যে স্পষ্ট বাল্যবিয়ে আয়োজন।

ঘটনাটি মিরসরাই মিরসরাই সদর ইউনিয়নের মিঠাছড়া বাজারের সাসা কমিউনিটি সেন্টারের। সেখানে বুধবার (০৪ অক্টোবর) চলছিল বাল্যবিয়ের আয়োজন।

সূত্র জানায়, উপজেলার খইয়াছড়া ইউনিয়নের পূর্ব খইয়াছড়া গ্রামের প্রবাসী তাজুল ইসলামের দশম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ের সঙ্গে পাশের জেলা ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার ফরহাদ নগর গ্রামের ইকবাল হোসেনের বিয়ে দিন ধার্য ছিল বুধবার। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মিঠাছড়া বাজারের সাসা কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছে এমন খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল কবির, সমাজ সেবা কর্মকর্তা সাবরিনা রহমান লিনা, খইয়াছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী ঘটনাস্থলে যান। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এই বিয়ে আয়োজন বন্ধ করার জন্য বর ও কনের অভিভাবকদের নির্দেশ দেন। তারা সেই নির্দেশ মেনে নেন।

এ বিষয়ে খইয়াছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী জানান, কনের বয়স মাত্রই ১৫। সে খইয়াছড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীতে পড়ছে। এর আগেও তাকে বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হলে আমরা বিয়ে বন্ধ করে দিই। কিন্তু তারপরেও বয়স হওয়ার আগেই তার বিয়ের আয়োজন করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল কবির বলেন, বাল্যবিয়ে আয়োজন চলছে এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করার নির্দেশ দেই। বর ও কনের অভিভাবকরা এই নির্দেশ মানার কথা বলেন।

তবে এ সময় কমিউনিটি সেন্টারে বর ও কনে উপস্থিত ছিলেন না।