বান্দরবানে বিএনপি নেতার পাঁকা দোকানঘর দখল করে নিয়েছে আলীগের নেতারা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৯ আগস্ট , ২০১৪ সময় ০৯:৪৩ অপরাহ্ণ

পাঁকা দোকানঘর
বান্দরবান প্রতিনিধি ॥
বান্দরবানের বাসষ্টেন্ড এলাকায় বিএনপি নেতা পাঁকা দোকানঘর’সহ জায়গা দখল করে নিয়েছে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার ভোররাতে এই ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, জেলা শহরের বাসষ্টেন্ড এলাকায় বান্দরবান ৩১৩ নং মৌজার ২২৩নং এবং ২৩০ নং খতিয়ানে বিএনপি নেতা আবুল কালামের নামে ৭৫ শতক জমি রয়েছে। ঐ জমির ২৯৩৫ দাগে পাঁকা দোকানঘর এবং পরিবহণের টিকেট কাউন্টার’সহ নির্মাণাধীন একটি ভবন রয়েছে (কালামের)। মঙ্গলবার ভোররাতে আওয়ামীলীগের ৯নং ওয়ার্ড দক্ষিন শাখা সাধারণ সম্পাদক বাদশা মিয়া চৌধুরীর নেতৃত্বে আওয়ামীলীগ এবং স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীরা দলবল নিয়ে নির্মাণীধীন ভবনের নীচের তলা দখল করে নেয়। দখলকৃত ভবনে চাউলের বস্তা এবং ফার্নিচার রেখে দখল পরিপূর্ন করেন। এরআগেও আওয়ামীলীগ নেতা এই বাদশা মিয়া চৌধুরী আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতার ছত্রছায়ায় পৌরসভার খোয়ারঘর, সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গা ’সহ বিভিন্নস্থানে বেশকয়েকজন নিরীহ ব্যক্তির জমি দখলের অভিযোগ রয়েছে। বিএনপি নেতা আবুল কালাম জানান, আমার নামীয় বান্দরবান মৌজার ২৯৩৫ দাগে নির্মাণাধীন ভবনের নীচের তলা দলবল নিয়ে দখল করে নেয় দখলবাজ আওয়ামীলীগ নেতা বাদশা মিয়া চৌধুরী। এরআগেও এই ব্যক্তি পৌরসভার খোয়ারঘর এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গা দখল করে নেয়। ভূমিদস্যু এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানাচ্ছি।
তবে আওয়ামীলীগের ৯নং ওয়ার্ড দক্ষিন শাখা সাধারণ সম্পাদক বাদশা মিয়া চৌধুরী জানান, জায়গাটি আমি (বাদশা মিয়া চৌধুরী) এবং হাজী আহম্মদ সৈয়দ কাছে পাঁচ লক্ষ টাকায় বন্দোকী রাখা হয়। টাকা ফেরত না পাওয়ায় জায়গায় নির্মিত ভবন দখল করেছি। এদিকে টাকা বুঝিয়ে পেয়েছি বলে ২০১০ সালের চার এপ্রিল লিখিত কাগজে স্বাক্ষর দেন বন্দোক গ্রহীতারা।
এ বিষয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহম্মেদ জানান, জমিটি নিয়ে টাকার লেনদেন ছিল দীর্ঘদিন ধরে। মঙ্গলবার ভোররাতে জায়গাটি দখল নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখে দুজনকে ধরে নিয়ে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনি। কাগজপত্র দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে নিজেরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধানের জন্য চেষ্ঠা করতেও বলা হয়েছে।


আরোও সংবাদ