বাণিজ্য সংগঠনের ভূমিকায় মুক্ত আলোচনা

প্রকাশ:| রবিবার, ১৭ মে , ২০১৫ সময় ০৬:০৫ অপরাহ্ণ

বাণিজ্য সংগঠনের ভূমিকায় মুক্ত আলোচনাচট্টগ্রামচেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র আয়োজনে “দি রোল অব ট্রেড অর্গানাইজেশন ইন ট্রেড এন্ড বিজনেস এক্সপানসনঃ চিটাগাং পারসপেক্টিভ” শীর্ষক এক মুক্ত আলোচনা ১৬ মে সন্ধ্যায় নগরীর স্থানীয় এক মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে নিটল গ্র“পের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহ্মাদসহ চট্টগ্রামের নবনির্বাচিত মেয়র আ.জ.ম. নাছির উদ্দিন, প্রাক্তন চেম্বার সভাপতি এম. এ. লতিফ এমপি, সামশুল হক চৌধুরী এমপি, চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালকবৃন্দ মাহফুজুল হক শাহ, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), এস. এম. শামসুদ্দিন, অঞ্জন শেখর দাশ ও মোঃ আরিফ ইফতেখার, চেম্বার পরিচালক মাহবুবুল হক চৌধুরী (বাবর)’র সঞ্চালনায় মুক্ত আলোচনায় আরো বক্তব্য রাখেন চেম্বার পরিচালক এম. এ. মোতালেব, সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশন’র এ. কে. এম. আক্তার হোসেন, শিপ ব্রেকার্স এসোসিয়েশন’র আমজাদ হোসেন চৌধুরী, ছৈয়দ ছগীর আহমেদ, বিজিএমইএ’র প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন চৌধুরী, ট্রেডবডি নেতা তাহের সোবহান, ফ্রোজেন ফিস এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন’র গোলাম মোস্তফা বিভিন্ন সেক্টরের প্রতিনিধিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মাহবুবুল আলম তাঁর স্বাগতঃ বক্তব্যে বলেন-জাতীয় অর্থনীতির উন্নয়নে বাণিজ্য সংগঠনের ভূমিকা অপরিসীম। তাই ব্যবসা-বাণিজ্যের নিরবচ্ছিন্ন স্বাভাবিক ধারা অব্যাহত থাকলে চেম্বার ও বাণিজ্য সংগঠনগুলো তাদের জোরালো ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। এক্ষেত্রে তিনি চট্টগ্রামকে দেশের অর্থনীতির প্রবেশদ্বার হিসেবে উল্লেখ করে অর্থনৈতিক অগ্রগতির জন্য চট্টগ্রামকে প্রাধান্য দেয়ার উপর গুরুত্বারোপ করেন। নবনির্বাচিত চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন তাঁর বক্তব্যে চট্টগ্রামকে ব্যবসাবান্ধব নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদানের পাশাপাশি ব্যবসাকে নিরাপদ রাখতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে উল্লেখ করেন।

আব্দুল মাতলুব আহ্মাদ আসন্ন এফবিসিসিআই নির্বাচনে উন্নয়ন পরিষদের পক্ষে সভাপতি নির্বাচিত হলে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীদের জন্য সব ধরণের সহযোগিতার দ্বার উন্মুক্ত রাখার প্রতিশ্র“তি দিয়ে যেকোন সমস্যা সমাধানের আশ্বাস প্রদান করেন এবং চট্টগ্রাম যা চাইবে তা দেওয়া হবে বলেও অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।