বাজার মনিটরিং: ৮ প্রতিষ্টানকে জরিমানা, কারাদণ্ড

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৯ জুন , ২০১৫ সময় ০৫:০৭ অপরাহ্ণ

রমজানের প্রথম দিনেই চট্টগ্রামে বাজার মনিটরিংয়ে নেমেছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শুক্রবার সকালে নগরীর রিয়াজউদ্দিন বাজার ও খাতুনগঞ্জ এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে এই অভিযান চালানো হয়।

রিয়াজ উদ্দিন বাজারে কাঁচা বাজারের আড়তে অভিযান চালিয়ে অত্যধিক মুল্যে পণ্য (কাঁচা মরিচ, বেগুন, পেঁপে, শসা) বিক্রির দায়ে তিনটি প্রতিষ্টানকে মোট ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং ৫ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়।

বিনাশ্রম কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মেসার্স আনসার ট্রেড্রার্স এর মালিক মো জনিকে ১৫ দিন, পেয়ের বাবা বাণিজ্যালয় এর মালিক মো রফিকুলকে ৭ দিন, সেলিম বাণিজ্যালয় এর মালিক রতমকে ৭ দিন, মেসার্স বায়েজিদ আরত এর মালিক আতাহের হোসাইনকে ৭ দিন ও আমিনুর রহমানকে ৭ দিন।

আদালতের নেতৃত্ব দেয়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল আলম বলেন, ‘ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর আলোকে এই রায় প্রদান করা হয়েছে। রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম স্থিতিশীল রাখতে এ ধরনের অভিযান চলমান থাকবে।’

অভিযান চলাকালে জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন উপস্থিত থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম তদারকি করেন।

অন্যদিকে নগরীর খাতুনগঞ্জ এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামিম আল ইয়ামীন।

শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত অভিযান চলাকালে মেয়াদবিহীন পণ্য ও মূল্যতালিকা না থাকায় ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া জব্দ করা হয়েছে ১৫ কেজি ঘি।

জেলা প্রশাসনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মেয়াদবিহীন পণ্য রাখার দায়ে খাতুনগঞ্জের সুলতান ট্রেডার্সকে ১০ হাজার টাকা, মূল্যতালিকা না থাকায় গ্রামীণ বাণিজ্যালয়কে ৫হাজার, গাউছিয়া স্টোরকে ১০হাজার টাকা, মোহাম্মদ আলি স্টোরকে ১০ হাজার টাকা ও মূল্যতালিকা না থাকা ও মেয়াদবিহীন পণ্য রাখার দায়ে তকদির ভান্ডারকে ৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া জব্দ করা হয়েছে ১৫ কেজি ঘি।