বাজারে আরো এক দফা বাড়ল দর

প্রকাশ:| রবিবার, ২২ মে , ২০১৬ সময় ১১:২৯ অপরাহ্ণ

বাজারে এক দফা বাড়ল কয়েকটি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। বিশেষ করে, শবে বরাতে যেসব পণ্যের বাড়তি চাহিদা তৈরি হয়, সেগুলোর দাম বেড়েছে।
বাজারে গিয়ে চিনি, মুরগি ও গরুর মাংস, বুটের ডাল এবং সুগন্ধি চাল কিনতে আগের চেয়ে বেশি দাম দিতে হচ্ছে ক্রেতাদের। এ ছাড়া কাঁচা মরিচ ও লেবুর দামও বাড়তি।
রাজধানীর কয়েকটি বাজার ঘুরে গতকাল শনিবার দেখা গেছে, সবচেয়ে বেশি বেড়েছে ফার্মের মুরগির দাম। কেজিতে ১৫ থেকে ২০ টাকা বেড়ে কারওয়ান বাজারে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা দরে। হাতিরপুল বাজারে বিক্রেতারা ব্রয়লার মুরগি কেজিপ্রতি ১৯০ টাকা চাইছেন, যা আগের চেয়ে ২০ থেকে ২৫ টাকা বেশি।
ব্রয়লার মুরগির পাশাপাশি পাকিস্তানি জাতের বলে পরিচিত মুরগির দামও বেড়েছে। বাজার ভেদে প্রতিটিতে ১৫ টাকার মতো বেড়ে মাঝারি আকারের এসব মুরগি বিক্রি হচ্ছে প্রতিটি ১৬০ থেকে ১৮০ টাকায়।
কারওয়ান বাজারের আল্লাহর দান ব্রয়লার হাউসের বিক্রেতা সিরাজুল ইসলাম বলেন, শবে বরাতের সময় প্রতিবছরই মুরগির চাহিদা বাড়ে। এ সময় দামও কিছুটা বাড়ে।
মুরগির পাশাপাশি গরুর মাংসের দামও বেড়েছে। বাজার ভেদে ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়ে গতকাল গরুর মাংস বিক্রি হয়েছে কেজিপ্রতি ৪৪০-৪৫০ টাকা দরে। কাজীপাড়া বাজারে গত সপ্তাহে প্রতি কেজি গরুর মাংস ৪২০ টাকা ছিল, এখন সেটা ৪৪০ টাকা চাইছেন বিক্রেতারা। হাতিরপুল বাজারে ছোট গরুর মাংস ৪৪০ টাকা ছিল। এখন তা ৪৫০ টাকা দরে বিক্রি করছেন মাংস বিক্রেতারা।
শবে বরাতে চিনির চাহিদা বেড়ে যায়। গত এক সপ্তাহে পণ্যটির দাম বেড়েছে কেজিতে ৪ থেকে ৫ টাকা। রাজধানীর কারওয়ান বাজারে গতকাল প্রতি কেজি চিনি ৫৬-৫৮ টাকা ও হাতিরপুল বাজারে ৫৮ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে। কাজীপাড়া বাজারেও চিনি কেজিপ্রতি ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বলে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে।
হাতিরপুল বাজারের খুচরা বিক্রেতা মো. ফয়সাল গতকাল বলেন, খোলা চিনির দাম বেশি বেড়েছে। সপ্তাহ খানেক আগেও খোলা চিনি ৫৫ টাকা ছিল। মোড়কজাত চিনি ছিল কেজিপ্রতি ৫৮ টাকা। এখন মোড়কজাত চিনি ও খোলা চিনির দাম সমান, কেজিপ্রতি ৬০ টাকা।
শবে বরাতে হালুয়া তৈরির জন্য বুটের ডালের প্রয়োজন হয়। বেশ কিছুদিন ধরে ছোলার সঙ্গে বুটের ডালের দামও বাড়ছিল। গতকাল বাজারে বুটের ডাল মান ভেদে কেজিপ্রতি ৯৫ থেকে ১১০ টাকা দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে। সপ্তাহ দুয়েক আগেও যা ৮৫ থেকে ৯০ টাকা ছিল বলে জানান বিক্রেতারা।
ব্যবসায়ীরা জানান, এক মাস ধরে বাড়তে বাড়তে সুগন্ধি চালের দাম এখন কেজিপ্রতি ১১০ টাকায় উঠেছে, যা আগে ৮০-৮৫ টাকা ছিল। এ ছাড়া বিভিন্ন কোম্পানির মোড়কজাত সুগন্ধি চাল বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকা কেজি দরে।
শবে বরাত উপলক্ষে আতপ চালের গুঁড়ার বিক্রি বাড়লেও দাম বাড়েনি বলে জানান বিক্রেতারা। প্রতি কেজি চালের গুঁড়া ৫০-৫৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে ঢাকার বাজারে। আর আতপ চাল মিলছে ৩০-৩৫ টাকা কেজি দরে।
গুঁড়া দুধের বাজারও স্থিতিশীল আছে। কোম্পানি ভেদে প্রতিকেজি ৪৮০ থেকে ৫৮০ টাকা চাইছেন বিক্রেতারা। আর তরল দুধ গতকাল লিটারপ্রতি ৬২ টাকায় মিলছে হাতিরপুল ও কাজীপাড়া বাজারে।
হাতিরপুল বাজারের সবজি বিক্রেতা ফরিদ হোসেন বলেন, বৃষ্টির কারণে কাঁচা মরিচের দাম কেজিপ্রতি ২০ টাকা বেড়ে ৮০ টাকায় উঠেছে। লেবুর দাম হালিপ্রতি ৫ টাকা বেড়ে কাগজি লেবু ২৫ টাকা ও এলাচি লেবু ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
বেশির ভাগ সবজি কেজিপ্রতি ৪০ টাকার কাছাকাছি দরে বিক্রি হচ্ছে উল্লেখ করে ফরিদ বলেন, ‘বৃষ্টির কারণে সবজির দাম বাড়বে কি না, তা রোববার বোঝা যাবে।’


আরোও সংবাদ