বাঙালী জাতির শ্রেষ্ঠ সময় ছিল মহান মুক্তিযুদ্ধের নয় মাস

প্রকাশ:| সোমবার, ১৬ নভেম্বর , ২০১৫ সময় ০৮:২৯ অপরাহ্ণ

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের মতবিনিময় সভায় কো-চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব বদিউল আলম কমিশনার এর সভাপতিত্বে এবং মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব এ,বি,এম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে সর্বাধিক সংখ্যক ছিল ছাত্রসমাজ। এই ছাত্রসমাজ জীবন বাজি রেখে সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিল। পচাত্তর পরবর্তী গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামেও ছাত্রসমাজ অতুলনীয় ভুমিকা রেখেছিল। তিনি স্বাধীনতা বিরোধীদের অপকর্ম সম্পর্কে সজাগ থাকার জন্য মহানগর ছাত্রলীগকে আহবান জানান।
চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের উদ্যোগে সম্প্রতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অতিরিক্ত ফি আদায়ের প্রতিবাদে আন্দোলন সফল হওয়ায় আলহাজ্ব এ,বি,এম মহিউদ্দিন চৌধুরী ছাত্রনেতাদের প্রতি অভিনন্দন জানিয়েছেন। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা নুরুল আজিম রনি।
সভায় বক্তাগণ বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপর চবি কর্তৃপক্ষের নির্দেশে যে নির্বিচারে পাঁচ শতাধিক গুলি চালিয়ে শিক্ষাঙ্গনে একটি ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে যা কোনভাবেই দেশপ্রেমিক শান্তিকামী ছাত্র ও অভিভাবকের কাছে কাম্য হতে পারে না। গুলি করার নির্দেশ দিয়ে চবি কর্তৃপক্ষ ক্ষান্ত হয় নাই, যারা গুলি চালিয়েছে তাদেরকে অভিনন্দন জানিয়েছে। এর চাইতে লজ্জাজনক এবং দুঃখজনক ঘটনা আর কি হতে পারে। শিক্ষকরা ছাত্রদের পিতৃতুল্য, তারা ছাত্রদের রক্ষা করবে তা না করে গুলির মুখে ঠেলে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরত্বের ইতিহাসকে কলঙ্কিত করেছে।
সভায় উপস্থিত ছিলেন জাসদের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি ইন্দু নন্দন দত্ত, মহানগর আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, মহানগর ন্যাপ নেতা মৃতুল দাশ গুপ্ত, মুক্তিযোদ্ধা বাবু অমল মিত্র, মুক্তিযোদ্ধা পান্টু লাল সাহা, মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকা, ফরিদ মাহমুদ, আতিকুর রহমান, এস.এম সাঈদ সুমন, শেখ নাছির আহমেদ, আবুল হোসেন আবু, দেলোয়ার হোসেন দেলু, চবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক এ এইচ. এম ফজলে রাব্বী সুজন, মহানগর ছাত্রলীগের তালেব আলী, নাজমুল হাসান রুমি, জাকারিয়া দস্তগীর, সুজন বর্মন, হাসানুল আলম চৌধুরী, কাজী মাহমুদুল হাসান রণি, হাসান আলী, সালাউদ্দিন বাবু, মিজানুর রহমান মিজান, সরফুল আলম জুয়েল, সুলতান মাহমুদ ফয়সাল, নাবির আহমেদ লিটন, আনসারউল্লাহ সৌরভসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।