বাঁশখালীতে পুলিশের গুলিতে ৪ গ্রামবাসী নিহত

প্রকাশ:| সোমবার, ৪ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ০৮:৪৬ অপরাহ্ণ

CTG BASKHALI (3)জেলার বাঁশখালিতে এস আলম গ্রুপের কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও গ্রামবাসীর রক্তক্ষয়ি সংর্ঘষে পুলিশের গুলিতে অন্তত ৪ গ্রামবাসী নিহত ও পুলিশসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছে।

সোমবার বিকেল ৪টার দিকে গ্রামবাসীর উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে পুলিশ গুলি চালালে এ সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলে নিহতরা হলো-গন্ডামারা গ্রামের মৃত আশ্রাফ আলীর ছেলে মো. মুতুর্জা আলী ও আনোয়ারুল ইসলাম প্রকাশ অংকুর নূর। উমেদ আলীর ছেলে মোহাম্মদ জাকির হোসেন।

এছাড়া আহতদের মধ্যে ৪ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনার পর একজন মারা যায়।

রাত ১০টায় চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম জানান, হাসপাতালে আনার পর রাত ৯টার দিকে জাকির আহমেদ নামে একজনের মৃত্যু ঘোষণা করেছে চিকিৎসকরা।

নিহত ৭

বাঁশখালি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুজ্জামান সংর্ঘষে ৩ জন মারা যাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন-গন্ডামারা গ্রামে পুলিশের সাথে সংর্ঘষে ৩ জন নিহত পুলিশ সহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। বর্তমানে পরিন্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

গন্ডামারা ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি মেম্বার মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন জানান, পুলিশের গুলিতে অন্তত ৬ জন মারা গেছে শুনেছি। আহত হয়েছে পুলিশসহ ৩০/৪০ গ্রামবাসী। আহতদের চট্টগ্রাম এবং বাঁশখালি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে।

এর আগে বিকালে পুলিশ সংর্ঘষের খবর নিশ্চিত করলেও কেউ মারা গেছে কিনা তা নিশ্চিত করতে পারেননি জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) এ কে এম হাফিজ আক্তার। তিনি জানান, ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে এলাকার লোকজন সমাবেশ করেছ পুলিশ বাঁধা দিতে গেলে পুলিশের উপর হামলা চালায় গ্রামবাসী। এসময় পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি চালায়। গ্রামবাসীও পাল্টা গুলি করেছে। এতে পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।

ইউপি মেম্বার মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন আরো জানান, রোববার এস আলম বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মালামাল নেয়ার সময় গ্রামবাসী হামলা চালায় গাড়িতে। এ ঘটনায় পুলিশ রাতে ৬ জনকে আটক করলে গ্রামবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

BASKAHLI-3তারা সোমবার বিকাল ৩টায় গন্ডামারা মনাজি পুকুরপাড়ে স্থানীয় সাইক্লোন সেন্টার মাঠে প্রতিবাদ সমাবেশের ডাকে। কিন্তু সকাল উপজেলা প্রশাসন সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করে। বাঁশখালিবাসী প্রশাসনে নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে দুপুর থেকে প্রতিবাদ সমাবেশে যোগ দিতে থাকেন। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশ ফাঁকা গুলি চালিয়ে সমাবেশ পন্ড করার চেষ্টা করলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে গ্রামবাসী সাথে পুলিশের সংর্ঘষ লেগে যায়। এসময় পুলিশ শত শত রাউন্ড গুলি চালায়। পুলিশের গুলিতে ৬ জন নিহত হয়েছে শুনেছি।

এদিকে ঘটনা জানতে বাঁশখালি থানার ভারপ্রাপ্ত ঘটনা জানতে বাঁশখালি থানার ওসি স্বপন দাশকে বার বার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

স্থানীয় সাংবাদিকরা নিশ্চিত করেছেন সংর্ঘষে কমপক্ষে ৪ জন নিহত ও ৪০ জন আহত হয়েছে।