বাঁকখালী নদীতে সম্প্রীতির জাহাজ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৯ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:৩২ অপরাহ্ণ

বাঁকখালী নদীতে সম্প্রীতির জাহাজরামু উপজেলার বাঁকখালী নদীর মোহনায় ভাসানো হলো সম্প্রীতির জাহাজ। প্রবারণা পূর্ণিমার কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার দিকে এ জাহাজ ভাসানো হয়। প্রায় ২০০ বছর আগে মিয়ানমারে প্রচলিত এই জাহাজ ভাসা উৎসব রাখাইনরা প্রথম রামুতে প্রচলন করে। এরপর থেকে রামুতে বৌদ্ধ, রাখাইনরা প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে এ উৎসবের আয়োজন করে আসছে।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রামু-কক্সবাজার সদর আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল। এ জাহাজ ভাসানো উৎসবে বাঁকখালীর দু’পাড়ে নেমেছিল হাজার হাজার মানুষের ঢল। তিন মাস বর্ষাবাসের পর প্রবারণা পূর্ণিমায় বৌদ্ধ নর-নারী এ উৎসব পালন করে। রামুতে বৌদ্ধ নর-নারী ছাড়াও হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা এ উৎসবে যোগ দেন।

বাঁকখালী নদীতে ভাসছিল সাতটি দৃষ্টিনন্দন রঙ-বেরঙের জাহাজ। বাঁশ, বেত, রঙিন কাগজ, কাপড় দিয়ে অপূর্ব কারুকাজে তৈরি বিভিন্ন জীবজন্তু আকৃতির সাতটি জাহাজে চলছিল শিশু-কিশোর ও যুবকদের বাঁধভাঙা আনন্দ। নানা বাদ্য বাজিয়ে নাচে-গানে আনন্দে মাতোয়ারা হয়ে ওঠে সবাই।

এ উৎসবকে ঘিরে গত রোববার দুপুর থেকে রামুর বাঁকখালী নদীতে এ আয়োজন চলে আসছে। বিকেল তিনটায় রামু ফকিরাবাজারের পূর্বপাশে বাঁকখালী নদীর বালুচরে প্রবারণা ও জাহাজ ভাসা উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রবীর বড়ুয়ার সভাপতিত্বে ও প্রধান সমন্বয়কারী দীপকংর বড়ুয়া ধীমান এবং সাধারণ সম্পাদক স্বপন বড়ুয়া মেম্বারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় উদ্বোধক ছিলেন চট্টগ্রাম নন্দন কানন বৌদ্ধ বিহারের আবাসিক প্রধান প্রিয়রত্ন থের।২

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সহ সম্পাদক, লন্ডন ইউরোপিয়ান কলেজ অফ ল এর পরিচালক প্রশান্ত ভূষন বড়ুয়া, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুদ হোসেন, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি সুপ্ত ভূষন বড়ুয়া, সংবর্ধিত অতিথি ইঞ্জিনিয়ার বিশ্বজিত বড়ুয়া, রামু থানার অফিসার ইনচার্জ সাইকুল আহমদ ভূঁইয়া, রাজারকুলের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জাফর আলম চৌধুরী, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বাবুল শর্মা, রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুসরাত জাহান মুন্নি, রামু কেন্দ্রীয় বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক তরুণ বড়ুয়া, রামু প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা দর্পণ বড়ুয়া, সহ সভাপতি নীতিশ বড়ুয়া, খুনিয়া পালং ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ, জেলা যুবলীগের নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, বোধিরত্ন পত্রিকার প্রধান সম্পাদক দুলাল বড়ুয়া, সম্পাদক অর্পন বড়ুয়া, রামু কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ যুব পরিষদের আহবায়ক রজত বড়ুয়া রিকু , বৌদ্ধ সমিতি রামু শাখার সাধারণ সম্পাদক মৃনাল বড়ুয়া, মেম্বার সোনিয়া বড়ুয়া, বৌদ্ধ নেতা বংকিম বড়ুয়া, রামু প্রেস ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ হোসেন টাপু প্রমুখ।

ছড়াকার দর্পণ বড়ুয়া জানান, দেশে শুধু রামুতেই এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। জাহাজ ভাসানোকে কেন্দ্র করে দীর্ঘ একমাস রামুর ২০টি বৌদ্ধ পল্লীতে উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে এ উৎসব উদযাপিত হয়। তিনি বলেন, মোট সাতটি জাহাজ নদীতে নামানো হয়। রেঙ্গুনী কারুকার্যে চূড়া, ময়ূর, হাঁস, সিংহসহ নানা জীবজন্তুর প্রতিকৃতির রূপ ফুটিয়ে তোলা হয় জাহাজে।

এদিকে বুধবার বিকেলে সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপি রামুর অন্যতম পর্যটন স্পট উত্তর মিঠাছড়ি বিমুক্তি বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্র পরিদর্শনসহ কেন্দ্রীয় সীমা বিহারে হাজার প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও খিজারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বড়ুয়া পাড়া যুব সমাজের আয়োজিত ফানুস বাতি উত্তোলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।