‘‘বর্তমান সরকার নারী শিক্ষাকে উচ্চ মার্গে তুলে দিয়েছে’’

প্রকাশ:| শনিবার, ৯ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৫:৫৩ অপরাহ্ণ

কেশব দা
হাটহাজারী,চট্টগ্রাম::
পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি বলেছেন,বর্তমান সরকারের প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত দেশকে মধ্যম ও উন্নত আয়ের দেশে পরিণত করতে সুশিক্ষিত জনগোষ্ঠি দরকার। সুশিক্ষিত জনগোািষ্ঠ তৈরি করতে অভিভাবক,শিক্ষক,শিক্ষার্থী, পরিচালনা পরিষদ ও এলাকার সচেতন জনগোষ্ঠিকে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠা চালাতে হবে। শিক্ষার্থীদের মনে রাখতে হবে লেখাপড়া ফাঁকি দিলে সে ফাঁকির বোঝা নিজেকে আজীবন বহন করতে হবে। দেশের অভিভাবকদের ধারণা নিজ সন্তানদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠিয়ে দিলে তাদের দায়িত্ব শেষ। এ ধারণা বাদলাতে হবে। না হয় সন্তান যথাযথ তদারকির অভাবে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারবেনা। তিনি শনিবার (৯ জানুয়ারী) নাজিরহাট কলেজের নতুন প্রশাসনিক ও একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন এবং সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উল্লেখিত অভিমত ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বর্তমান সরকার নারী শিক্ষাকে উচ্চ মার্গে তুলে দিয়েছেন। কারণ দেশের অর্ধেক জনসংখ্যা নারী। অর্ধেক জনগোষ্ঠিকে শিক্ষা কার্যক্রম থেকে দুরে রেখে দেশের উন্নতি আশা করা যায় না। তিনি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে সত্যকে সাথে করে সততা নিয়ে কাজ করার জন্য আহবান জানান। উন্নত দেশের কাছে বাংলাদেশের উন্নয়ন ইর্ষান্মিয় বলে উল্লেখ করেন।

নাজিরহাট কলেজ চত্বরে এ উপলক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন কলেজ উন্নয়ন কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি ও শিক্ষানুরাগী লায়ন নাদের খাঁন। বিশেষ অতিথি ছিলেন হাটহাজারী উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোয়াজ্জম হোসাইন।

শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ এস এম নুরুল হুদা তিনি বলেন নাজিরহাট কলেজে ৫৫ বিঘা জায়গা রয়েছে। এ পরিমান জায়গা বাংলাদেশের হাতে গনা দুই একটি কলেজে রয়েছে মাত্র। ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬০ হাজার বর্গফুটের এ দুইটি ভবন নির্মিত হলে শিক্ষার্থীদের শ্রেণী কক্ষের সংকট হবে না। পরিরেশের কারণে শিক্ষার উন্নয়ন সাধিত হবে।

অনুষ্ঠানে পবিত্র কুরআন,গীতা ও ত্রিপিঠক থেকে পাঠ করেন যথাক্রমে মো: সেলিম উল্লাহ,অধ্যাপক দোলন কান্তি ভট্টাচার্য ও অধ্যাপক বিদ্যুৎ বড়–য়া।

অনুষ্ঠান সঞ্ছালনা উপকমিটির সদস্য অধ্যাপক মহিউদ্দিন,অধ্যাপক অনোমদর্শী বড়–য়া,অধ্যাপক রোজী মজুমদার,ফওজিয়া সুলতানা,মৈত্রি রায় ও ফারজানা হাছান এর সঞ্ছালনা অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম চোধুরী পরিচালনা পরিষদ সদস্য,মুছা চৌধুরী,আলহাজ্ব মুজিবুল হক চৌধুরী,মো: শাহাজাহান,ডা: নিজাম মোরশেদ চৌধুরী,সাংবাদিক মো: ইউনুছ মিয়া,আলহাজ্ব মো: আলমগীর মিয়া,অভিভাবকদের পক্ষে আফছার উদ্দিন চৌধুরী ও শিক্ষার্থীদের পক্ষে সানজিদা হোসাইন প্রমুখ। প্রধান অতিথি কলেজ সরকারি করণের জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাবেন বলে উল্লেখ করেন।অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান,গর্ভনিং বডির সদস্য,হাটহাজারী, কেসি জিয়াউর রহমান কলেজের অধ্যক্ষসহ বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।