বধূ সেজে শশুর বাড়ি নয় স্কুলে

প্রকাশ:| সোমবার, ৩ জুলাই , ২০১৭ সময় ১০:২৭ অপরাহ্ণ

বিয়ে বাড়িতে সাজ সাজ রব। অতিথিদের পোলাও-মুরগী দিয়ে আপ্যায়ন করা হচ্ছে। বধূ সেজে বিয়ের পিঁড়িতে বসে আছে নবম শ্রেণির ছাত্রী নাজমা আক্তার লাকী (১৪)। পার্শ্ববর্তী উখিয়া উপজেলা থেকে কিছুক্ষণ পরেই আসবে বর।

ঠিক ওই সময়ে বিয়ে বাড়িতে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) তুষার আহমদের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান। বিয়ের আসর থেকে নাজমা আক্তার প্রকাশ লাকীকে উঠিয়ে স্কুল ড্রেস পড়িয়ে স্কুলে পাঠালেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেলেন টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া শামলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এ ছাত্রী। উপস্থিত না থাকায় বেঁচে গেলেন বর।

জানা যায়, সোমবার দুপুরে বিয়ে চলাকালে অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়ে বই নিয়ে ওই ছাত্রীকে স্কুল পাঠান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ।

এ ঘটনায় বাল্যবিবাহ দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে স্কুলছাত্রীর মা হাসিনা আক্তার মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নিকট মুচলেকা প্রদান করেন।

এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) তুষার আহমদ জানান, বিয়ে বাড়িতে গিয়ে কাগজপত্র দেখে মেয়ের নির্ধারিত বয়স না হওয়ায় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন অনুযায়ী বিয়ের অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়।

তিনি আরো জানান, ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে মেয়েদের স্থান শ্বশুর বাড়ি নয়, বিদ্যালয়। বাল্যবিবাহ বন্ধে প্রশাসন সব সময় সক্রিয় রয়েছে এবং থাকবে।


আরোও সংবাদ