বঙ্গবন্ধু বাঙালীর মানসপটে চিরজাগ্রত থাকবে

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট , ২০১৭ সময় ০৪:৫১ অপরাহ্ণ

সম্মিলিত কর আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের জাতীয় শোক দিবসের সভায় সাংবাদিক আবুল মোমেন

সম্মিলিত কর আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ চট্টগ্রামের উগ্যোগে ২২ আগস্ট দুপুর ১২টায় বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এক স্মরণ আলোচনা পরিষদের সভাপতি এড. এম.এ বাশার তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত ব্যক্তি কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন। সম্মিলিত কর আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের অন্যতম নেতা নুরুল কায়সার বেলাল এর পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. রতন কুমার রায়, চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ, আলহাজ্ব আলী আহমদ নাজির, আলহাজ্ব মো. ইদ্রিস, আলহাজ্ব মোহাম্মদ বদিউজ্জামান, আলহাজ্ব এম. এ মালেক, এড. মোহাম্মদ ইলিয়াছ, জয়শান্ত বিকাশ বড়–য়া, চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতির বর্তমান সভাপতি মাহফুজুল হক মনি, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এড. মেজবাহ উদ্দিন, চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. এম এ বারী, শওকতুল আলম, আলহাজ্ব নুর হোসেন, সিনিয়র কর আইনজীবী মোস্তফা মোল্লা, ফজলুল করিম, নুরুল আনোয়ার, এড. মঈনুল আলম চৌধুরী, টিপু, লিটন মিত্র, এড. শাহনুর আরেফীন, রেজাউল করিম লেনিন প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন বলেন বঙ্গবন্ধু বাঙালীর সকল শ্রেণী পেশার মানুষের নেতা ছিলেন। বঙ্গবন্ধু ইতিহাসের কালজয়ী নেতা বাঙালীর মানসপটে চিরজাগ্রত থাকবে। ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুকে শারীরিকভাবে মৃত্যুবরণ করলেও আদর্শের চেতনায় বঙ্গবন্ধুকে কখনো ইতিহাসের পাতা মুছে দেওয়া যাবে না। বঙ্গবন্ধু একজন সাধারণ মানুষের পরিবার থেকে তিল তিল করে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে এই পরাধীন বাংলাদেশকে স্বাধীনতা এনে দিতে সক্ষম হয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু কৃষকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে বিশ্বস্ত নেতা হিসেবে সকল মানুষের কাছে প্রিয় নেতা হয়ে উঠতে পেরেছিলেন। জীবনের এক তৃতীয়াংশ সময় কারাগারের অন্ধপ্রকোষ্ঠে জীবনযাপন করে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা অর্জনের জন্য আমৃত্য সংগ্রাম করেছেন। সকলরকম লোভ লালসার উর্ধে উঠে দেশপ্রেমের সর্বোচ্চ আদর্শ নিয়ে বঙ্গবন্ধু তার সমস্ত জীবনকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রাপ্তির জন্য ভুমিকা রেখেছেন। এমনকি স্বপরিবারে জীবন দিয়ে বঙ্গবন্ধু বাঙালী জাতিকে ঋণী করে গেছেন। যে ঋণ কখনো শোধ হওয়ার নয়। সভার বিশেষ অতিথি এড. রতন কুমার রায় বলেন বঙ্গবন্ধু আমাদের অস্তিত্বের শ্রেষ্ঠ ঠিকানা। বঙ্গবন্ধুবিহীন বাংলাদেশকে কল্পনাও করা যায়না। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব অস্বীকার করার সুযোগ নেই। বঙ্গবন্ধুকে ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ নেতা আজন্ম স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

 


আরোও সংবাদ