বঙ্গবন্ধুর দূরদর্শী, গতিশীল এবং ঐন্দ্রজালিক সাহসী নেতৃত্বে মহান স্বাধীনতা

প্রকাশ:| রবিবার, ৩০ মার্চ , ২০১৪ সময় ১১:০৪ অপরাহ্ণ

কাতার বঙ্গবন্ধু পরিষদের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি শওকত বাঙালি

বঙ্গবন্ধুর দূরদর্শী, গতিশীল এবং ঐন্দ্রজালিক সাহসী নেতৃত্বে বাংলার মানুষ হাজার বছরের পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙ্গে ছিনিয়ে এনেছিল মহান স্বাধীনতা। ঘাতকচক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তাঁর স্বপ্ন ও আদর্শকে মুছে ফেলতে পারেনি, যা কেবল দেশের ১৬ কোটি মানুষের অন্তরেই প্রোথিত নয়, প্রবাসেও বঙ্গবন্ধুর উজ্জীবিত সৈনিকদের বীরত্ব কর্মকান্ডেই তার প্রমাণ করে। বঙ্গবন্ধু পরিষদ কাতার কেন্দ্রীয় কমিটি স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালি একথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর দূরদর্শী, গতিশীল এবং ঐন্দ্রজালিক সাহসী নেতৃত্বে বাংলার মানুষ হাজার বছরের পরাধীনতা শৃঙ্খল ভেঙ্গে ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতার রক্তিম সূর্য। বাঙালিরা পেয়েছে নিজস্ব স্বাধীন রাষ্ট্র। যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশে বঙ্গবন্ধু যখন সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে সোনার বাংলা গড়ার কাজে নিয়োজিত ছিল তখনই তাঁকে হত্যা করা হয় স্বপরিবারে। তাঁকে হত্যার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তি বাঙালির ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, কৃষ্টি ও অগ্রযাত্রাকে রুদ্ধ করার অপপ্রয়াস চালায়। অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক বাংলাদেশের রাষ্ট্রকাঠামোকে ভেঙ্গে ফেলাই ছিল তাদের মূল লক্ষ্য। হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত স্বাধীনতাবিরোধী চক্র শুরু করে হত্যা, ক্যু ও ষড়যন্ত্রের অশুভ রাজনীতি। জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে সংবিধান স্থগিত করে মার্শাল ল’ জারি করা হয়। সেনাশাসক খুনি জিয়া গণতন্ত্রকে হত্যা করে দেশে কায়েম করে একনায়কতন্ত্রের সেনা শাসনের মধ্যদিয়ে কালাকানুন জারি করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের পথ রুদ্ধ করার পাশাপাশি খুনিদের পুরস্কৃত করে।
প্রধান অতিথি শওকত বাঙালি বলেন, বঙ্গবন্ধুর শাহদাত বরণের এতো বছর পরও নানা ঘাত প্রতিঘাত সত্ত্বেও তাঁর স্বপ্নে লালিত বাঙালি জাতি একটি শোষণ, দারিদ্র ও সাম্প্রদায়িকমুক্ত সোনার বাংলা গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে গভীরভাবে ধারণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন। দেশে বিদেশে আমরা যে, যেখানেই অবস্থান করি না কেন, ২০২১ স্বপ্নকল্প ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকলে বিশ্বময় একটি সমৃদ্ধশালী জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে পারবো ইন্শাল্লাহ।
গত ২৯ মার্চ দোহাস্থ বঙ্গবন্ধু পরিষদের স্থায়ী কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি মোঃ মুছার সভাপতিত্বে ও সিনিয়র সহ-সভাপতি এম.এ.বাতেনের উপস্থাপনায় আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, সহ-সভাপতি মোঃ ইসমাইল মিয়া, সহ-সভাপতি হাসেম চৌধুরী, সহ-সভাপতি মোঃ ফোরকান, সাংগঠনিক সম্পাদক কমরেড ইসমাইল, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক, প্রচার সম্পাদক আলম শাহ, বঙ্গবন্ধু কাতার শিল্পনগরের সাধারণ সম্পাদক মোঃ হারুন, প্রকৌশলী আবদুল্লাহ আল মামুন প্রমূখ। এছাড়া বাংলাদেশ কাতার সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি ও চ্যানেল আইয়ের প্রতিনিধি মুসা আহমেদ বখ্তপুরী, বাংলাভিশনের কাতার প্রতিনিধি শরীফউদ্দীন সন্দ্বীপি, প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা দোহা-কাতারের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া চৌধুরীসহ বিপুল সংখ্যক বঙ্গবন্ধুর সৈনিক উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, শওকত বাঙালি প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা, দোহা-কাতার’র বিশেষ আমন্ত্রণে এসে বর্তমানে দোহা’য় অবস্থান করছেন। তিনি ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কাতার শাখা ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা, দোহা-কাতার, বাংলাদেশ কাতার সাংবাদিক ফোরাম, বাংলাভিশন দর্শক ফোরাম, একুশে টিভি দর্শক ফোরাম এবং কাতার-চট্টগ্রাম সমিতি, রাউজান সমিতিসহ আরো বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।