ফিফার বর্ষসেরার তালিকায় নেই নেইমার

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ২৫ জুলাই , ২০১৮ সময় ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ

অনুমিতভাবেই ফিফার বর্ষসেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন, বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা দুই ফুটবলার লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। কিন্তু তাদের এবার সেখানে জায়গা হয়নি নেইমারের। মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যায় ২০১৮ সালের ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা এবারের ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেনস প্লেয়ার’ এর জন্য জন্য নিজেদের ওয়েবসাইটে ১০ জনের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করেছে।

গত মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে দুর্দান্ত সময় কাটিয়েছিলেন রোনালদো। সান্তিয়াগো বার্ন্যাবুর ক্লাবটি টানা তৃতীয় চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জেতাতে সামনে থেকে দেন নেতৃত্ব। এরপরই সিআর সেভেন জাতীয় দলের জার্সিতে বিশ্বকাপ খেলতে পা রাখেন রাশিয়ায়। শুরুটা করেছিলেন দারুণ। প্রথম ম্যাচে স্পেনের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। পরের ম্যাচে মরক্কোর বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানের জয়ে জয়সূচক গোলটিও করেছিলেন তিনি। তবে শেষ ষোলোয় উরুগুয়ের কাছে ২-১ গোলে হেরে ছিটকে যায় তার দল।

বিশ্বকাপ থেকে ফিরেই রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে দীর্ঘ নয় বছরের সম্পর্কের ইতি টানেন রোনালদো। পাড়ি দেন তুরিনের ক্লাব জুভেন্টাসে।

রোনালদোর মতো গত মৌসুমটা দারুণ কেটেছে মেসির। বার্সেলোনাকে লা লিগা ও কোপা ডেল রে শিরোপা জয়ের পাশাপাশি লিগে ৩৪ গোল করেন তিনি। তাতে স্পেনের শীর্ষ লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার পিচিচি ট্রফি ও ইউরোপের লিগগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ গোলের জন্য গোল্ডেন শু নিজের করে নেন কিং লিও। যদিও বিশ্বকাপে ভাল করতে পারেননি তিনি। আর্জেন্টিনার জার্সিতে করেন মাত্র ১টি গোল। যে কারণে তার দলও ছিটকে পড়ে শেষ ষোলোতে ফ্রান্সের কাছে ৪-৩ গোলে হেরে।

ফিফার বর্ষসেরা দলে নেইমারের জায়গা না পাওয়ায় কারণ তার চোট। ২০১৭ সালের অগাস্টে পিএসজিতে যোগ দেওয়া ব্রাজিলের এ তারকা গত ফেব্রুয়ারি থেকেই ছিলেন মাঠের বাইরে। তিন মাস পর অবশ্য ফিরেছিলেন। দারুণ কিছুর সম্ভাবনাও জাগিয়ে ছিলেন পিএসজির হয়ে অভিষেক মৌসুমে ঘরোয়া ফুটবলে তিনটি শিরোপা জেতা এই ফুটবলার। করেছিলেন ২টি গোলও। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে কোয়ার্টার-ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে হেরে ছিটকে যায় তার দল ব্রাজিল।

এবারে ফিফার বর্ষসেরা দলের সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন লুকা মদ্রিচ। গেল বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ক্রোয়েশিয়াকে ফাইনালে তুলতে দারুণ অবদান রেখেছিলেন তিনি। ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন তিনটি ম্যাচে। জিতে ছিলেন গোল্ডেন বল। যে কারণে প্রথমবারের মতো এ পুরস্কারটি জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে তার।

ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ে বড় অবদান রাখা কিলিয়ান এমবাপে ও অঁতোয়ান গ্রিজমান প্রত্যাশিতভাবেই রয়েছেন ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলার হওয়ার দৌড়ে। এবারের বিশ্বকাপে ফরাসি এ দুই ফরোয়ার্ড সবার দৃষ্টি কেঁড়েছেন। দুজনেই করেন সমান ৪টি করে গোল।

রাশিয়া বিশ্বকাপে ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলা এডেন হ্যাজার্ড রয়েছেন ফিফার বর্ষসেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায়। সেমি-ফাইনালে ফ্রান্সের কাছে হেরে যাওয়া বেলজিয়ামের পথচলায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল চেলসির এই ফরোয়ার্ডের।

গেল মৌসুমে লিভারপুলের জার্সিতে দুর্দান্ত সময় কাটিয়েছেন মোহাম্মদ সালাহ। অভিষেক মৌসুমেই জেতেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার। খেলোয়াড়দের ভোটে ইংল্যান্ডের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতার পাশাপাশি ফুটবল রাইটার্স অ্যাসোসিয়েশনের ভোটেও বর্ষসেরা হন সালাহ। কিন্তু বিশ্বকাপে জ্বলে উঠতে পারেননি মিশরের এ ফরোয়ার্ড। তারপরও জায়গা করে নিয়েছেন বর্ষসেরা হওয়ার দৌড়ে।

২৮ বছর পর ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ সেমি-ফাইনালে ওঠায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন হ্যারি কেন। রাশিয়া বিশ্বকাপে করেন সর্বোচ্চ ৬ গোল। যে কারণে গোল্ডেন বুটও নিজের করে নেন টটেনহ্যামের এ তারকা ফরোয়ার্ড।

ফিফার বর্ষসেরার সংক্ষিপ্ত তালিকা একমাত্র ডিফেন্ডার হিসেবে আছেন ফ্রান্স ও রিয়াল মাদ্রিদের রাফায়েল ভারানে।

২০১৭ সালের ৩ জুলাই থেকে চলতি বছরের ১৫ জুলাই পর্যন্ত সময়টা বেছে নেওয়া হয় ছেলেদের ফুটবলের সেরা খেলোয়াড়ের সংক্ষিপ্ত তালিকা নির্বাচনের জন্য।

২৪ জুলাই থেকে ১০ আগস্ট পর্যন্ত নিজেদের দৃষ্টিতে যিনি সেরা, তাকে ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন পাঠকেরা। ফিফার ওয়েবসাইটে এ সুযোগ পাবেন সব পাঠককে। ২৪ সেপ্টেম্বর লন্ডনে এক জাঁকজমক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ঘোষণা করা হবে এ বছরের সেরা ফুটবলারের নাম।

গত এক দশকে ব্যালন ডি’অর ভাগাভাগি করেছেন রোনালদো ও লিওনেল মেসি। গত দুই বছর ‘দ্য বেস্ট’ জিতেছেন রোনালদো। তবে রাশিয়া বিশ্বকাপে আঁতোয়ান গ্রিজমান, কিলিয়ান এমবাপে, লুকা মদ্রিচ, এডেন হ্যাজার্ডরা যে পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন, তাতে এদের মধ্যে কেউ ফিফা বর্ষসেরা হলে অবাক হওয়ার কিছুই থাকবে না।

এদিকে ফিফা বর্ষসেরার কোচের সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক কোচ জিনেদিন জিদান। তার সঙ্গী ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ী কোচ দিদিয়ের দেশম।

ফিফার বর্ষসেরা সংক্ষিপ্ত তালিকা:

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো (পর্তুগাল, রিয়াল মাদ্রিদ/ইউভেন্তুস), কেভিন ডে ব্রুইন (বেলজিয়াম, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), অঁতোয়ান গ্রিজমান (ফ্রান্স, অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ), এডেন হ্যাজার্ড (বেলজিয়াম, চেলসি), হ্যারি কেন (ইংল্যান্ড, টটেনহ্যাম হটস্পার), কিলিয়ান এমবাপে (ফ্রান্স, পিএসজি), লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা, বার্সেলোনা), লুকা মদ্রিচ (ক্রোয়েশিয়া, রিয়াল মাদ্রিদ), মোহাম্মদ সালাহ (মিশর, লিভারপুল), রাফায়েল ভারানে (ফ্রান্স, রিয়াল মাদ্রিদ)।

বর্ষসেরা কোচের সংক্ষিপ্ত তালিকা:

ম্যাস্সিমিলিয়ানো অ্যাল্লেগ্রি (জুভেন্টাস), স্তানিস্লাভ চেরচেশভ (রাশিয়া), জ্লাতকো দালিচ (ক্রোয়েশিয়া), দিদিয়ের দেশম (ফ্রান্স), পেপ গার্দিওলা (ম্যানচেষ্টার সিটি), ইয়ূর্গেন ক্লপ (লিভারপুল), রবার্তো মার্টিনেজ (বেলজিয়াম), দিয়েগো সিমিওনে (অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ), গ্যারেথ সাউথগেট (ইংল্যান্ড), আরনাস্তে ভালভার্দে (বার্সেলোনা) ও জিনেদিন জিদান (রিয়াল মাদ্রিদ)।