ফাকাঁ চাটগা শহর

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই , ২০১৬ সময় ১১:০০ অপরাহ্ণ

ফাকাঁ শহরনিউজচিটাগাং:: গ্রামে পাড়ি দিয়েছেন নগরবাসী। ব্যস্ত নগরী ফাকাঁ হয়ে গেছে! আমার মায়াবী শহর রাস্তা ঘাট জনশূণ্য কিংবা ফাকাঁ দাড়িয়ে আছে কিছু নিশ্চুপ… সাথে আধাঁর খেলে লুকোচুরি… রাত ন’টার দিকে কর্ণফূলী ব্রিজ, ফিরিঙ্গি বাজার, সদরঘাট, কোতোয়ালী, নিউমার্কেট, চেরাগীর মোড়, আন্দরকিল্লা, চকবাজার, মুরাদপুর ঘুরে দেখা গেছে রাস্তায় তেমন কোন যান চলাচল নেই্। হঠাৎ হঠাৎ কয়েকটি পরিবহন চলছে… রাস্তা ঘাট প্রায় ফাকাঁ। নগরে বসবাসরত অল্প সংখ্যক মানুষ আত্নীয় স্বজণের কাছ থেকে নিজ বাসায় ফিরে যাচ্ছেন।

ফাকা শহরসারা দেশে আজ পালিত হচ্ছে সর্ববৃহৎ উৎসব ঈদুল ফিতর। এ দিনটিকে ঘিরে অনেকেই আগেভাগেই বাড়ি ফিরলেও কর্মব্যস্ততায় কেউ কেউ একটু দেরিতে হলেও ঘরমুখো হয়েছেন। ঈদের দিন সকাল থেকেই চট্টগ্রাম ছাড়তে দেখা গেছে অনেককে। বার্স টার্মিনালগুলোতে ভিড় না থাকলেও টুকটাক মানুষের চলাফেরা চোখে পড়েছে। তবে যাত্রীদের চাপ ছিল না রেল ও সড়ক পথে। অন্যান্য দিনের তুলনায় আজ দূরপাল্লার যারবাহনের সংখ্যায় ছিল কম।

বৃহস্পতিবার দুপুরে বটতলী রেলওয়ে স্টেশন ঘুরে দেখা যায়, অন্যান্য যে কোন দিনের চেয়ে যাত্রীদের উপস্থিতি ছিল কম। দেখা মেলে হাতেগোনা কয়েকজন যাত্রীর। ঈদের দিন সকালে চট্টগ্রামে ঈদ কাটিয়ে গ্রামের বাড়িতে যাত্রা শুরু করেছেন অনেক যাত্রী। তবে ঈদের দিন সল্প ট্রেন থাকায় পর্যন্ত অপেক্ষার প্রহর গুনতে হচ্ছে তাদের। আবার কেউ কেউ ট্রেনের বিকল্প হিসেবে বাসে শহর ছাড়তে দেখে গেছে।

এদিকে বিআরটিসি বাস টার্মিনালেও ঘরমুখো মানুষের বেশ দেখা মিলেছে। একটু পর পরই ছেড়ে যাচ্ছে দূরপাল্লার বাস। কথা হয় রয়েল কোচ সার্ভিসের কাউন্টার মাস্টার ্এর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আজ ঈদের দিন বেশ যাত্রী আছে। তবে ঈদের আগের তুলনায় অনেক কম। নির্ধারিত দামেই নিকেট বিক্রি হচ্ছে।’
কথা হয় ভৈরবগামী যাত্রী আলামিনের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘গতকালই গ্রামের বাড়িতে চলে যেতাম। কিন্তু ব্যস্ততার কারণে যাওয়া হয়নি, তাই আজ যাচ্ছি। এতো ভিড়ের মাঝেও আমরা যে বাড়িতে যেতে পারবো, তা ভাবতেও পরিনি।’

সব এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কড়া নজরদারি চোখে পড়েছে। নিয়মিত নিরাপত্তাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশ ও আর্মড পুলিশদেরও দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে।


আরোও সংবাদ