ফটিকছড়ি-ত্রিপুরা সীমান্ত : পাচারকারীদের নিরাপদ রুট

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

শওকত হোসেন করিম, ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা:

ফটিকছড়ি উপজেলার ফটিকছড়ি-ত্রিপুরা সীমান্তে ভারত থেকে ফেন্সিডিল, ভারতীয় চোরাই মোটর সাইকেল সহ নানান মাদক দ্রব্য নিয়ে একশ্রেনীর পাচারকারী চক্র সক্রিয় থাকে আইন-শৃংখলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে এ সকল চালান হাত বদল করে ফেনী নদীর তীর ঘেষে একদল পাচারকারী দল। গত সপ্তাহে নারায়নহাট এলাকা থেকে সাইফুল নামে একজনকে ২০০ বোতল ফেন্সিডিল সহ আইন শৃংখলা বাহিনী আটক করে ।

সূত্র গুলো জানায়, ফটিকছড়ি উপজেলার সাথে ভারতের প্রায় ২২ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে। এছাড়া পার্শ্ববর্তী ছাগলনাইয়া, মীরশ্বরাই এবং পার্বত্য রামগড়, মাটিরাঙ্গা উপজেলার সাথেও রয়েছে যোগাযোগ ।এর ফলে ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানার সীমান্তকে ফেন্সিডিল, ভারতীয় চোরাই মোটর সাইকেল সহ বিভিন্ন পন্য পাচারকারীরা ব্যাপক ভাবে নিয়ে আসছে। ফেন্সিডিল সহ ভারতীয় পন্য পাচারের নিরাপদ ট্রানজিট রুটে পরিণত হয়েছে ফটিকছড়ির উত্তরাঞ্চল।

বিজিবি ও পুলিশের চোখ ফাকি দিয়ে পাচার করছে চট্টগ্রাম শহর ও ফটিকছড়িসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায়।

সুত্র জানায়, ফেনী নদীতে গোসলের অভিনয় করে স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে ৫-৭ বোতল এবং রাতের আধারে ২০-৩০ বোতল করে ফেন্সিডিল এনে এক জায়গায় জড়ো করে। পরে পাচার কারীরা স্কুল ছাত্রের মত ব্যাগ ভর্তি করে, মোটরসাইকেল চেপে ফেন্সিডিল পাচার করে এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে।

স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করে জানায়, মাদক ও ভারতীয় পন্য পাচারকারীরা বাগান বাজার ইউপির সুজা মিয়ার বাড়ির সামনের পাম্প এলাকায়, পানুয়া চড়া, জ্যোতির চর ভারতীয় বিএসএফ ক্যাম্প কাটা তার কেনেলের পাশে, বাগান বাজার সংলগ্ন এলাকার ৬নং ও ১২নং চর, আধাঁর মানিক, নলুয়া, কচুয়া খোন্দা, হাবিবউল্লার চর, হলুদিয়া, বাংলা বাজার এলাকার চোরাই পথে প্রবেশ করছে ভারতের নিষিদ্ধ ফেনসিডিল, হেরোইন, গাঁজাসহ নানা প্রকারের মাদক দ্রব্য। সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি’র চোখকে ফাঁকি দিয়ে সংঘবদ্ধ পাচারকারীরা ভারত থেকে সীমান্ত পার করে এসব মাদক দ্রব্য দেশে নিয়ে আসে।

বর্তমানে ফটিকছড়ির উত্তর অংশে মাদকের প্রাপ্যতা অনেকটা সহজ হয়ে পড়েছে। এতে করে স্কুল কলেজ পড়–য়া উঠতি বয়সের যুবক এবং কিশোররাই মূলত আক্রান্ত হচ্ছে বেশী। তবে এসব মাঝে মধ্যে আইন শৃংখলা বাহিনী আটক করলেও বেশীর ভাগ সময়ে পাচার হয় এসব মাদক দ্রব্য ।

বাগান বাজার এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাসিন্দা জানান ভারতীয় গাড়ির যন্ত্রাংশ, মোটর সাইকেল, ফেন্সিডিল পাচার কারীরা পাচারের মাধ্যমে দেশের অর্থ নীতিকে পঙ্গু করে দিচ্ছে।

ভারতীয় সীমান্ত এলাকা হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মত পাচার কারীরা সক্রিয় আছে।

ভূজপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাহিদুল কবির বলেন, ফেন্সিডিল, গাজা, হেরোইন সহ নানান মাদক দ্রব্য নিয়ে একশ্রেনীর পাচারকারী চক্র সক্রিয় থাকে। এ ব্যাপারে আইন-শৃংখলা বাহিনী সব সময় সতর্ক অবস্থায় আছে। যেখানে যার কাছে পাওয়া যাবে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভারতীয় অবৈধ পন্য পাওয়া গেলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। মাদক আটকের জন্য আমরা নিয়মিত অভিযান করি ইতি মধ্যে বেশ কিছু মাদক উদ্দার করা হয় যার মুল্য প্রায় দশ লক্ষ টাকা।