প্রয়োজন হলে সেনা মোতায়েন

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল , ২০১৫ সময় ০৩:৫৫ অপরাহ্ণ

সেনাবাহিনীচট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে এখনও সেনাবাহিনী মোতায়েনের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি মন্তব্য করে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবদুল বাতেন বলেছেন, চট্টগ্রামের পরিস্থিতি বুঝে সেনাবাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। গতকাল সোমবার দুপুরে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সেলের সমন্বয় সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা জানান।
রিটার্নিং অফিসার বাতেন বলেন, ‘চট্টগ্রামে এখনও সেনাবাহিনী মোতায়েনের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিবেচনা করে গোয়েন্দা সংস্থা যে মতামত দেবে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া, সিইসি মহোদয় বলেছেন, ১৯শে এপ্রিল ঢাকায় আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার অভিযান জোরদার করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তারা আমাদের কথা দিয়েছেন, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে যা যা প্রয়োজন তারা সব কাজই করবেন।’
নির্বাচনে পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, বিজিবি ও র‌্যাব পরস্পরের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবে বলেও জানিয়ে রিটার্নিং অফিসার বলেন, ‘প্রত্যেক কেন্দ্রে ২২ থেকে ২৪ জন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হবে। এছাড়া, সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এবং ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় আরও বেশি সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হবে।’
আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সেলের সমন্বয় সভায় সেলের সভাপতি ও রিটার্নিং অফিসার মো. আবদুল বাতেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ডিজিএফআই’র কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নজরুল ইসলাম, ২৮ ব্যাটালিয়ন বিজিবি’র উপ-পরিচালক মেজর তানভির মাহমুদ, র‌্যাবের চট্টগ্রাম জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর জাহাঙ্গীর আলম, ডিজিএফআই’র উপ-পরিচালক শফিউল আহমেদ, নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গোয়েন্দা) এসএম তানভির আরাফাত, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) মুহাম্মদ নাঈমুল হাছান প্রমুখ।