প্রাইমারী শিক্ষকেরা থাকেন শহরে, কর্মস্থল রাউজান

mirza imtiaz প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ এপ্রিল , ২০১৯ সময় ০৬:২৬ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান প্রতিনিধিঃ রাউজানে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকার মধ্যে অধিকাংশ থাকে চট্টগ্রাম শহরে শিক্ষক শিক্ষিকাদের ছেলে মেয়েরা চট্টগ্রাম নগরীর ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল ও কেজি স্কুলে লেখাপাড়া করে । চট্টগ্রাম নগরীতে বসবাসকারী শিক্ষক শিক্ষিকেরা প্রতিনিয়ত বাসে করে এসে রাউজানের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করে । চট্টগ্রাম নগরীতে বাসবাসকারী শিক্ষক শিক্ষিকা রাউজানের বাসিন্দ্বা হিসাবে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকুরী পাওয়ার পর তারা পরিবার পরিজন নিয়ে চট্টগ্রাম শহরে বাসবাস করে । চট্টগ্রাম শহরে বসবাসকারী শিক্ষক শিক্ষিকেরা চট্টগ্রাম শহর থেকে তাদের কর্মস্থল রাউজানে নিয়মিত আসেনা । আসলে ও বিলম্বে স্কুলে আসে । সড়কে যানজট হলে সঠিক সময়ে স্কুলে আসতে পারেনা শিক্ষক শিক্ষিকেরা । এইসব কারনে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যহত হয়ে আসছে । রাউজানে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান উন্নয়ন করার জন্য সরকার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে মাল্টি মিডিয়া প্রজেক্টর, ল্যপটপ প্রদান করেন। রেলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি গত ২০১৭ সাল থেকে রাউজানের ১শত ৮২টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২০ হাজার শিক্ষার্থীকে দুপুরের টিফিন প্রদান করে আসছে । রাউজানের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকার ও স্থানীয় সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী প্রচেষ্টা চালিয়ে আসলে ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকারা নিয়মিত শিক্ষার্থীদের পাঠদান না করায় শিক্ষার মান উন্নয়নের পথে ভাধা হয়ে পড়েছে । গত কয়েক মাস পুর্বে রাউজান আর আর এ সি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে ভতি হওয়ার জন্য আবেদন করে ৫শত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ও বেসরকারী কেজি স্কুল প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনি পরিক্ষায় পাশ করা ৫শত শিক্ষার্থী । তাদেরকে ভর্তি পরিক্ষা নেওয়া হয় । ভর্তি পরিক্ষার ফলাফলে দেখা যায় রাউজান মডেল ইনষ্টিউট এর শিক্ষার্থী ও কেজি স্কুল থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরা পাশ করলে ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পাশ করেছে হাতে গোনা কয়েকজন । ভর্তি পরিক্ষায় পাশ না হওয়া অনেক শিক্ষার্থী পাশ^বর্তি এমপি ও ভুক্ত উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয় । প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশনা দিয়েছেন সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নিজ কর্মস্থলে তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে । প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা দেওয়া সত্বেও রাউজানের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক শিক্ষিকেরা কর্মস্থলে বসবাস না করে চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন স্থানে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছে । রাউজানের ১শত ৮২টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক শিক্ষিকেরা চট্টগ্রাম নগরীতে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করা প্রসঙ্গে রাউজান উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনকে ফোন করে জানতে চাইলে তিনি ব্যস্ত রয়েছে বলে জানিয়ে পরে কথা বরবেন বলে জানান । সর্বশেষ গতকাল ১৭ এপ্রিল বুধবার দুপুর ২টার সময়ে ফোন করলে উপজেলা মিক।সা অফিসার চৌধুরী আবদুল্ল্যাহ আল মামুন ফেঅন রিসিভ করেনি । কয়েকজন রাউজানের সাধারন মানুষ বলেন, রাউজানে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান ভাল হলে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকাদের ছেলে মেয়েদের চট্টগ্রাম নগরীর ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল ও কেজি স্কুলে লেখাপড়া করানো হচ্ছে কেন? গত ১৬ এপ্রিল মঙ্গলবার সকালে রাউজানের ১শত ১৪টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাউজান উপজেলা পরিষদ হলে প্রাথমিক গন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের প্রদত্ত মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ও সাউন্ড সিষ্টেম বিতরন করা হয় । মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ও সাউন্ড সিষ্টেম বিতরন অনুষ্টানে রেলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেন, শিক্ষার প্রাথমিক স্তর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় । প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীরা সুশিক্ষায় শিক্ষিত হলে তারা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ, বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে মেধাবী শিক্ষার্থী হিসাবে গড়ে উঠা সম্ভব । সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকাদেরকে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান উন্নয়ন করার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মেধাবী হিসাবে গড়ে তুলতে হবে । রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা বলেন, রাউজানে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক শিক্ষিকার সংখা ১ হজার ৮০ জন । তাদের মধ্যে বেশীর ভাগ শিক্ষক চট্টগ্রাম নগরীতে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করেন । সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক শিক্ষিকেরা সঠিক সময়ে এসে তাদের দায়িত্ব পালন করেন কিনা তা সরেজমিনে পরিদর্শন করে বিদ্যালয়ে শিক্ষক শিক্ষিকাদের অনুপস্থিত পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্বে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।


আরোও সংবাদ