প্রস্তাবনাকে সর্বোচ্চ বিবেচনায় মূল্যায়ন করা হবে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৬ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১১:৩৯ অপরাহ্ণ

নাগরিক সেবা নিশ্চিত না করে বর্ধিত গৃহকর নগরবাসীর ওপর চাপিয়ে দেওয়া জুলুমের শামিল হবে বলে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে জানিয়েছেন নগর আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল।

 মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির প্রতিনিধি দলকে জানিয়েছেন, সংগঠনের জনস্বার্থ বিষয়ক প্রস্তাবনাকে সর্বোচ্চ বিবেচনায় মূল্যায়ন করা হবে।

নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর আনুষ্ঠানিক চিঠি ও সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় মেয়রের সঙ্গে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল।

বৈঠকে নগর আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি ছিলেন সহসভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, খোরশেদ আলম সুজন, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আদনান, দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ হাসান মাহমুদ চৌধুরী সমশের, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক, আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী।

প্রতিনিধি দল মেয়রকে অবহিত করেন, বর্ধিত গৃহকর নিয়ে গণঅসন্তোষ ধূমায়িত হয়েছে। এখনই এ সমস্যার সম্মানজনক নিষ্পত্তি না হলে দল ও সরকার বিপজ্জনক পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে। তাই চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ মনে করে কোনো অজুহাতে নগরবাসীর ওপর বর্ধিত গৃহকর আরোপ যুক্তিসংগত নয়। নাগরিকসেবা নিশ্চিত না করে বর্ধিত গৃহকর নগরবাসীর ওপর চাপিয়ে দেওয়া জুলুমের শামিল। তাই এটা জনস্বার্থের পরিপন্থী। মনে রাখতে হবে আওয়ামী লীগ জনগণের দল। আওয়ামী লীগ জনগণকে অন্যায়ভাবে শোষণ-শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনের ঐতিহ্য ধারণ করে আসছে। আমরা আশা করি দলের একজন দায়িত্বশীল নেতা হিসেবে আপনিও এ ব্যাপারে সচেতন।

আওয়ামী লীগ নেতারা দাবি করেন, বর্ধিত গৃহকর নিয়ে গণঅসন্তোষ নিরসনে নতুন করারোপের কার্যকারিতা আগামী দুই বছরের জন্য স্থগিত রেখে আগের অ্যাসেসমেন্ট অনুযায়ী কার্যকর করা হোক।

তারা মেয়রের উদ্দেশে বলেন, নগরবাসীর প্রত্যাশা অনুযায়ী সিটি করপোরেশন পরিচালিত হলে দল ও সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। কেননা সিটি করপোরেশনসহ স্থানীয় সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো সরাসরি জনঅধিকার বাস্তবায়নে ওতপ্রোতভাবে সম্পৃক্ত। তাই আমরা সিটি করপোরেশনসহ স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রমকে দলের ভিত্তি সুদৃঢ়করণে যথেষ্ট গুরুত্ব দিই।

তিনি এও আশা প্রকাশ করেন যে, এ বিষয়টির সম্মানজনক নিষ্পত্তিতে দলীয় নেতৃবৃন্দ তাঁকে পরামর্শ ও সহযোগিতা প্রদান করে যাবেন।