প্রশ্ন ফাঁসের ন্যূনতম সম্ভাবনা নেই: চবি উপাচার্য

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১০:২২ অপরাহ্ণ

চলতি বছরের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার শুরতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্নপত্র ফাঁসের খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসেছে। ফলে হতাশ হওয়ার পাশাপাশি এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি ক্ষোভও প্রকাশ করছেন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

প্রশ্নপত্র ফাঁস-ভর্তিচ্ছুদের ক্ষোভ এসবের মধ্যেই ২৬ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) থেকে শুরু হচ্ছে দেশের অন্যতম বিদ্যাপীঠ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা। এবারই প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়ের চার ইউনিটের অধীনে ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত এই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রশ্ন ফাঁসের এই সময়ে কতটুকু প্রস্তুত চবি ?

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, চবির ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের ন্যূনতম সম্ভাবনা নেই।

তিনি বলেন, ‘যে প্রক্রিয়ায় প্রশ্ন প্রণয়ন ও মুদ্রণ হয় তা এতোটাই গোপনীয়তার মধ্যে করা হয়, তাতে প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোনো সুযোগ নেই। কেউ যদি প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে এমন মনে করে তাহলে আমি তাকে বলবো, ২৪ ঘণ্টা আগে আমাকে জমা দিতে। আমি পরদিন ওই পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের সঙ্গে মিলিয়ে দেখব। যদি হুবহু মিলে যায় কমিটি গঠন করে প্রয়োজনে আবার পরীক্ষা নেব। সেই সাহসটুকু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের আছে।’

প্রশ্ন ফাঁসের অর্থ কোনো ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর কমন পড়া নয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যে ভালোভাবে প্রস্তুতি নিবে তার ৫০ ভাগ বা ৭০ ভাগ প্রশ্ন কমন আসতে পারে। এর মানে এই নয় যে প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। বিভিন্ন অনুষদের ডিনরা অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে প্রশ্নপত্র তৈরি ও সংরক্ষণ করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা প্রশ্নপত্র ফাঁস ও অনিয়ম রোধে সার্বক্ষণিক কাজ করছে। তাই আমি প্রশ্নপত্র ফাঁসের সম্ভাবনা দেখছি না।’

ভর্তিচ্ছুদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা নির্দ্বিধায় ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। কোনো অনিয়ম চোখে পড়লে বা অসুবিধায় পড়লে প্রত্যেকটি ফ্যাকাল্টি ও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে প্রশাসনের নাম্বার দেওয়া আছে। সেখানে ফোন করলে যেকোনো সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত তারা।’


আরোও সংবাদ