প্রশাসন বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে ছিলো-আলীগ প্রার্থী

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ১১:২৭ অপরাহ্ণ

মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, পেকুয়া::
প্রশাসন বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে ছিলো-আলীগ প্রার্থীপেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও পেকুয়া সদর ইউনিয়নের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের একক চেয়ারম্যান প্রার্থী এড.কামাল হোসেন গতকাল শুক্রবার তার বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন, ৩১ মার্চ ইউপি নির্বাচনে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের প্রশাসন বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছে। পেকুয়ার প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপর হামলা করা হয়েছে। কেন্দ্র থেকে দলীয় নেতকর্মী ও এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। প্রশাসন বিএনপির প্রার্থীর কাছ থেকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ হয়ে কাজ করে আমার নিশ্চিত বিজয় কেড়ে নেওয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে এড কামাল হোসেন আরো বলেন, ৩১ মার্চ সকাল ১০টার দিকে পেকুয়া জিএমসি ভোট কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক আবুল কাসেম, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল শামা শামীম, আবুল হাসেম টুনু, ফোরকান, এরফান, আওয়ামী লীগ কর্মী আবুল হাসেমের উপর পুলিশ নির্বিচারে হামলা ও গুলি বর্ষন করেছে। পুলিশের গুলিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আবুল কাসেম গুরুতর আহত হয়েছে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপর পুলিশের এহেন ন্যাক্করজনক হামলার ঘটনাই প্রমাণ করে প্রশাসন বিএনপির পক্ষে কাজ করেছে। প্রশাসনের ভুমিকা চরম প্রশ্নবিদ্ধ। বিএনপি প্রার্থীর পক্ষে পেকুয়ার বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে পুলিশই ধানের শীষ প্রতীকে সিল মেরে বাহাদুর শাহর বিজয় নিশ্চিত করে দিয়েছে। পেকুয়া সদরের ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড়ের ভোট কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের সকল এজেন্ট কর্মী ও সমর্থকদের বের করে দেওয়া হয়েছে। এড. কামাল হোসেন আরো বলেন, ৩১ মার্চ পেকুয়া সদর ইউনিয়ন নির্বাচনে প্রশাসন বিএনপির প্রার্থী বাহাদুর শাহকে বিজয় নিশ্চিত করতে ভোটের পূর্বেই নীলনকশার চক তৈরী করে রেখেছিল। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, পেকুয়া সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আজম খান, আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুল্লাহ মেম্বার, আওয়ামী লীগ নেতা মাহাবুল আলম, পেকুয়া উপজেলা ওলামা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মাওলানা মো. হাসান প্রমূখ।


আরোও সংবাদ