প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপে রামুর পুনারাবৃত্তি হলনা কাপ্তাইয়ে

প্রকাশ:| বুধবার, ৮ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ০২:০৬ অপরাহ্ণ

কুরআন ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফেইসবুকে আপত্তিকর বক্তব্য পোস্ট।। আটক ১

কাপ্তাই প্রতিনিধি:
কুরআন ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে ফেইসবুকে আপত্তিকর বক্তব্য পোস্ট।। আটক ১প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের দক্ষতার সহিত দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের কারণে আর একটি রামুর ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল কাপ্তাইবাসী। এক উপজাতীয় যুবক কুরআন শরীফ ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে ছবি সহ আপত্তিকর বক্তব্য ফেইসবুকে পোস্ট করাকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার উপজেলা সদরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এঘটনায় কাপ্তাই থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত অংসিংমং মারমা, পিতা- সুইহ্লাপ্রু মারমা, বড়ইছড়িপাড়া, বড়ইছড়ি, কাপ্তাইকে ওই দিন রাতেই আটক করা হয়। বর্তমানে এলাকাবাসীর মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। এলাকায় স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন সকালে (www.facebook.com/aoungsingmong.marma39/) অংসিংমং মারমার ফেইসবুক একাউন্টে কুরআন শরীফ ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে ছবি সহ আপত্তিকর বক্তব্য দেখার পর দ্রুত বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এতে দলমত নির্বিশেষে জনগণের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা সদরে স্থানীয় জনগণ অভিযুক্ত যুবকের শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভসহ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। তৎক্ষনিক রাঙ্গামাটি জেলা থেকে প্রশাসনিক কর্মকর্তারা কাপ্তাই উপজেলা সদরে ছুটে আসেন। কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানোর জন্য সড়কে বিজিবি ও পুলিশি টহল জোরদার করা হয়। বিকেলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপজেলা ইউএনও কার্যালয়ে এক বৈঠকে মিলিত হয়। প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা বৈঠক শেষে উপজেলা চত্তরে স্থানীয় জনগণের উদ্দেশ্যে উত্তেজনা না ছড়ানোর জন্য বক্তব্য তুলে ধরেন। তারা বলেন, যেই দোষী হোক তাকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেওয়া হবে। তবে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেউ যাতে ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে না পারে সেদিকে সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। সন্ধ্যার পরে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মো: মোস্তাফা কামাল পাশার সভাপতিত্বে উপজেলা ইউএনও’র কার্যালয়ে পুনঃরায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, রাঙ্গামাটি জেলা পুলিশ সুপার আমেনা বেগম, ওয়াগ্গা বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্নেল সাব্বির সারার সাফাত, জেলা এডিসি রেভিনিউ তানভির আহমেদ সিদ্দিকি, জেলা প্রথম শ্রেণির ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দিলদার হোসেন, রাঙ্গামাটি সদর উপজেলা ইউএনও ও কাপ্তাইয়ের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা রহমান শম্পা, এএসপি (কাপ্তাই সার্কেল) সাফিউল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, কাপ্তাই থানার ওসি হারুন অর রশীদ প্রমুখ। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সৃষ্ট ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে একটি মামলা দয়ের করা হয়। যাহার মামলা নং- ০২, তারিখ: ০৭/১০/১৪ইং। রাতেই পুলিশ অভিযুক্ত অংসিংমং মারমাকে গ্রেপ্তার করে রাঙ্গামাটি জেল হাজতে প্রেরণ করেন। প্রশাসনের তড়িৎ পদক্ষেপের কারণে উপজেলার কোথাও কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এতে এলাকাবাসীর মাঝে স্বস্তি ফিলে এসেছে। যে কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ ও বিজিবি টহল অব্যাহত রয়েছে।


আরোও সংবাদ