প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবিতে ঢাবি সাদা দলের শিক্ষকদের মিছিল

প্রকাশ:| রবিবার, ১ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ০৯:০৬ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগ, নির্বাচনী তফসিল বাতিল এবং নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে ঢাবি শিক্ষকমৌন মিছিল ও মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিনএনপি-জামায়াত সমর্থিত সাদা দলের শিক্ষকরা। বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি চত্বর প্রথম দফা মানববন্ধন শেষে মৌন মিছিল নিয়ে প্রেসক্লাব ও শহীদ মিনারে সমাবেশ করেন তারা। এসময় শিক্ষকগণ দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ করে সবার অংশ গ্রহনের জাতীয় নির্বাচনের দাবি জানান। সাদা দলের আহ্বায়ক কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সদরুল আমিনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলাম, পরমানু শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আব্দুল আজিজ, ফার্মেসী অনুষদের সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. আব্দুল রশিদ, অধ্যাপক ড. আমিনুর রহমান মজুমদার, শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আকতার হোসেন খান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মামুন আহমেদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. এবি এম ওবায়দুল ইসলামসহ শতাধিক শিক্ষক। এর আগে ভিসি চত্বরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. সদরুল আমিন বলেন, আমরা গণতন্ত্রের পক্ষে। নাশকতার মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয় না। প্রধানমন্ত্রী দেশকে নাশকতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। আমরা তার পদত্যাগ দাবি করছি। এরপর প্রেসক্লাবের সংক্ষিপ্ত সমাবেশে অধ্যাপক ড. তাজমেরী এস এ ইসলাম বলেন, দেশের ৯০ ভাগ মানুষ মনে করেছেন এই সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়। অথচ প্রধান নির্বাচন কমিশন বলছে সম্ভব। আমরা তার এ অন্ধ দলীয় আনুগত্যের ধিক্কার জানাই। আবিলম্বে তার পদত্যাগ দাবি করছি। শিক্ষক সমিতির সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেন খান বলেন, দেশে আজ ানুষ হত্যা করা হচ্ছে। মানুষকে পুরিয়ে মারছে। আর এসবগুলো হচ্ছে একজন মাত্র ব্যক্তির নির্দেশে। তিনি হচ্ছেন অবৈধ প্রধানমন্ত্রী। আমরা তার পদত্যাগ দাবি করছি। পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আব্দুল আজিজ বলেন, শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের সভা নেত্রী। তার কথায় সবাই উঠে বসে। তাই কোন দলের সভানেত্রী নির্বাচনকালীন সরকার প্রধান হলে তার অধীন নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। হওয়া সম্ভাব নয়।